Tag Archives: রুবেল হোসেন

বোলিংয়ে নিজের পুরনো ছন্দ ফিরে পেয়েছেন রুবেল হোসেন

২০১৫ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অন্যতম সফল অস্ত্র ছিলেন পেসার রুবেল হোসেন। কিন্তু তারপরই জাতীয় দলে অনিয়মিত হয়ে পরেন এই গতি তারকা। আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে থাকবেন কিনা তা জানা যাবে ২০শে ফেব্রুয়ারি দল ঘোষণার পর। তবে রুবেল হোসেন জাতীয় দলে ফিরতে মরিয়া হয়ে আছেন। এই লক্ষ্যেই করে যাচ্ছেন কঠোর পরিশ্রমও।

প্রথমে ইনজুরি ও পরে শৃঙ্খলাজনিত কারণে দল থেকে বাদ পড়েন বাগেরহাটের এই ক্রিকেটার। নিউজিল্যান্ড সফরেও রাখা হয়নি তাকে দলে। তবে মোহাম্মদ শহীদের ইনজুরিতে দলে জায়গা পেলেও ওয়ানডে একাদশে জায়গা হয়নি এই তারকা পেসারের। পরে টি-টোয়েন্টি খেলার সুযোগ পেয়ে নিজের যোগ্যতার প্রমাণ রাখেন।

কিন্তু এরপর জায়গা মেলেনি প্রথম টেস্ট একাদশে। তবে ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে তাকে দলে রাখা হলেও ভারত সফরে রাখা হয়নি। এই সময় বাংলাদেশ ক্রিকেট লীগে (বিসিএল) প্রাইম ব্যাংক সাউথ জোনের হয়ে খেলছেন তিনি। ইনিংসে একবার পাঁচ উইকেটসহ দুই ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়েছেন এ পেসার।

গতকাল মিরপুর স্টেডিয়ামে একাডেমির মাঠে অনুশীলনের ফাঁকে বলেন, ‘আমি অনেক কষ্ট করছি। অনেক কঠিন পরিশ্রম করে যাচ্ছি আর মাঠে এর প্রয়োগ করার চেষ্টা করছি। ভালোই মনে হচ্ছে আমার ছন্দ। নিজের পুরো গতিতে লম্বা স্পেল করছি। আমি এটা ধারাবাহিক করতে চাই।’
জাতীয় দলে জায়গা পাওয়া নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করে গেলেও তিনি তাকিয়ে আছেন নির্বাচকদের দিকে, ‘এটা সম্পূর্ণ নির্বাচকদের ওপর নির্ভর করে। আমি এখন বিসিএলে খেলছি। আমার লক্ষ্য এখানে ভালো বোলিং করা, উইকেট নেয়া। দলের যেভাবে ভালো হবে আমি সে চেষ্টাই করি। নির্বাচকরা সবাই মাঠে যাচ্ছেন, সব ম্যাচে তারা দেখছেন কে কেমন করছে। এটা সম্পূর্ণ তাদের ওপর। অবশ্য আমি যদি সুযোগ পাই তাহলে সেটা পরিপূর্ণভাবে কাজে লাগানোর চেষ্টা করবো।’

এই পেসার দল থেকে বাদ পড়ায় ভেঙে পড়েননি। বরং তিনি জাতীয় দলে ফেরাকে কঠিন চ্যালেঞ্জ হিসেবেই নিয়েছেন, ‘ক্রিকেটে সব খেলোয়াড়েরই এটা হবে। আমি দলে ফেরাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। আমাকে আবার ভালো বোলিং করতে হবে। ভালো বোলিং করেই আমাকে জাতীয় দলে জায়গা করে নিতে হবে।’

উল্লেখ্য, পেসার রুবেল হোসেন জাতীয় দলের হয় ২২ টেস্ট ও ৫৭ ওয়ানডে খেলে যথাক্রমে ৩২ ও ৭৫ উইকেট নিয়েছেন।

ভালো করার চেষ্টা করব, বাকি সব নির্বাচকদের সিদ্ধান্ত: রুবেল

ছবি: বিসিবি

ভারত সফরে দলে জায়গা না হলেও পেসার রুবেল নিজেকে প্রস্তুত রাখতে অংশ নিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) পঞ্চম আসরে। প্রথম ম্যাচেই বাজিমাত করেছেন বাংলাদেশের অন্যতম এই পেসার। রোববার সাউথ জোনের হয়ে দুই ইনিংসে নিয়েছেন ছয় উইকেট

শুধু প্রথম ম্যাচ নয়, পরের ম্যাচগুলোতেও ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চান জাতীয় দলের এই ক্রিকেটার। দলে ফিরতে মনযোগ দিচ্ছেন ঘরোয়া ক্রিকেটে। জানালেন জাতীয় দলে ডাক পাওয়াটা নির্বাচকদের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করে। তিনি বলেন, ‘ভালো বোলিং করার চেষ্টা করব। বাকি সব নির্বাচকদের সিদ্ধান্ত।’

সামনে যত ম্যাচ পাবেন প্রত্যেক ম্যাচে ভালো খেলা একমাত্র লক্ষ্য রুবেলের। বর্তমানে দলের বাইরে থাকলেও জাতীয় দলের জন্য সবসময় নিজেকে প্রস্তুত রাখতে চান রুবেল। তিনি বলেন, আমি নিজেকে জাতীয় দলের জন্য সব সময়ই প্রস্তুত রাখার চেষ্টা করি। ভারত সফরে সুযোগ হয়নি। বিসিএল খেলার জন্য প্রাইম ব্যাংক সাউথ জোনের সাথে যোগ দিয়েছি। এখানে ভাল পারফর্ম করার চেষ্টা করছি।’

নিয়মিত বিসিএল না খেললেও দীর্ঘদিন পর ফিরে পাঁচ উইকেট পাওয়ায় উৎফুল্ল রুবেল হোসেন। দুর্দান্ত এই পেসার বলেন, ‘বিসিএল নিয়মিত খেলা হয় না। অনেক দিন পর পাঁচ উইকেট পেয়ে ভালো লেগেছে। এখানকার উইকেট পেস বোলারদের সহয়তা করছে। চেষ্টা করেছি উইকেটের সুবিধা নিয়ে ভালো বোলিং করতে। কোচের পরিকল্পনা মতো বোলিং করতে পেরে খুবই ভালো লাগছে।’

রুবেলের পাশাপাশি বল হাতে উজ্জ্বল ছিলেন ‘কাটার মাস্টার’ মুস্তাফিজুর রহমানও। বল হাতে তুলে নিয়েছেন দুই উইকেট। এছাড়া স্পিনার সোহাগ গাজীও নিয়েছেন দুটি উইকেট। তাদের সম্মিলিত আক্রমণেই প্রথম ইনিংসে ১৪৪ রানে গুটিয়ে গেছে ইস্ট জোন।

এর আগে, প্রথম ইনিংসে ৪০৩ রানের সংগ্রহ পায় সাউথ জোন। জবাবে ইসলামি ব্যাংক ইস্ট জোন গুটিয়ে যায় ১৪৪ রান তুলতেই। ফলো অনে পড়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে ৭৭ রান তুলতেই ৫ উইকেট হারিয়েছে ইস্ট জোন। দ্বিতীয় ইনিংসেও এক উইকেট পেয়েছেন রুবেল হোসেন।

বাউন্সারে রুবেলও আহত

বল হাতে দুর্ধর্ষ তিনি। তবে এবার ব্যাট হাতেও তাণ্ডব চালালেন রুবেল হোসেন। দলের দু:সময়ে ব্যাটিং করতে আসেন তিনি। আর নিজেকে নতুন রূপে উপস্থাপন করেন। তিন বাউন্ডারি হাকিয়ে সংগ্রহ করেন ১৬ রান। তবে বেশিক্ষণ এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেননি তিনি।
দলীয় সংগ্রহ যখন ২৮৯ রান, তখন হাতে চোট পান রুবেল।

ট্রেন্ট বোল্টের বল এসে রুবেলে হোসেনের কনুইতে এসে লাগে। ব্যাথায় ককিয়ে উঠেন তিনি। মাঠে আসেন ফিজিওসহ দলের কয়েকজন। কিছুক্ষণ পর আবার ব্যাট হাতে ক্রিজে দাঁড়ান তিনি। সঙ্গী কামরুল ইসলাম রাব্বি।

বোল্টের ওভারের শেষ বলটি মোকাবেলা করার পর বল হাতে ফিরেন টিম সাউদি। তার শিকার হন রাব্বি। ফিরে যান মাত্র ২ রান করে।
২৮৯ রানেই শেষ হয় বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস। শেষ হয় দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের প্রথম দিনের খেলা। এর আগে বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায় ক্রাইস্টচার্চে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় নিউজিল্যান্ড।

১২৭ রানের জুটি গড়েন সৌম্য সরকার ও সাকিব আল হাসান। এ জুটির দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের সুবাদে লড়াই করার মতো অবস্থান পায় বাংলাদেশ। তবে সৌম্য-সাকিবের বিদায়ের পর বিপদে পড়ে দল। সে সময় অভিষিক্ত জুটি নুরুল হাসান ও নাজমুল হোসেন শান্ত দলকে ভরসা দেয়। ৫৪ রানের জুটি গড়ে তারা।

শান্তর বিদায়ে আবার ব্যাটিং বিপর্যয়ে মুখে পড়ে বাংলাদেশ। তখন দলের হাল ধরে থাকেন নুরুল হাসান। তবে শেষমেষ আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। কারণ ট্রেন্ট বোল্টের বলে অর্ধশত থেকে মাত্র ৩ রান দুরে থাকতেই মাঠ ছাড়েন তিনি।এর পর দুর্দান্ত পেসার রুবেল হোসেন এসে দলকে কিছুটা এগিয়ে দেন। তিন বাউন্ডারিতে ১৬ রান সংগ্রহের পরই বোল্টের বলে কনুইয়ের চোট পান।কিছু সময় পর এ অবস্থায়ই ব্যাট হাতে ক্রিজে যান। তবে সাউদির বলে রাব্বি ফিরলে আর কিছুই করার থাকে না রুবেলের।

এর আগে মুশফিক সাউদির বাউন্সারে আহত হয়েছিলেন

সবার উপরে রুবেল

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজ জিততে না পারলেও বাংলাদেশকে কিছুটা স্বস্তি দিচ্ছেন রুবেল হোসেন।

আড়াই বছর পর টুয়েন্টি টুয়েন্টি ক্রিকেটে ফেরার সিরিজে রুবেল হোসেন শিকার করেছেন ৭ উইকেট, যা এই সিরিজে কোনো বোলারের সর্বোচ্চ সংখ্যক উইকেট শিকার।

প্রথম ম্যাচে রুবেলের শিকার ছিল ১টি উইকেট, সেই সাথে খরুচে বোলিং। প্রত্যাবর্তন মন মতো না হলেও রুবেল জ্বলে উঠেন পরের দুই ম্যাচে। পুরো বাংলাদেশ দল যেখানে নিষ্প্রভ থেকেছে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের কাছে, সেখানে ব্যতিক্রম ছিলেন কেবল রুবেলই। সিরিজের দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচে তিনটি করে উইকেট দখল করে মোট সাত উইকেট নিয়ে রুবেলই হন সিরিজের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি।

উল্লেখ্য, রুবেল ছাড়া বাংলাদেশের দলের বাকি বোলারদের শিকার করা উইকেটের সংখ্যা রুবেলের চেয়েও কম- ছয়টি!

আরেকবার নিজেকে প্রমাণের অপেক্ষায় রুবেল

নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) দল ঘোষণা করে রেখেছিলো ৪ নভেম্বর। ওই দলে ছিলেন না পেসার রুবেল হোসেন। এক মাস পর ভাগ্য খোলে ডানহাতি এই পেসারের।

বিপিএলের ম্যাচে ফিল্ডিং করতে গিয়ে ইনজুরিতে পড়েন পেসার মোহাম্মদ শহীদ। তার জায়গাতে নিউজিল্যান্ড সফরে রুবেলকে দলে নেওয়া হয়।

এভাবে ডাক পেয়ে আগেই উচ্ছ্বাসের কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশের এই গতি তারকা। অপেক্ষায় আছেন অস্ট্রেলিয়াতে বাংলাদেশের ক্যাম্পে যোগ দেওয়ার। ক্যাম্পে যোগ দিতে আজ সোমবার রাতেই বিমানে চড়বেন রুবেল। অস্ট্রেলিয়ায় কদিন অনুশীলনের পর দলের সঙ্গে যাবেন নিউজিল্যান্ডে। আর এই সফরে আরও একবার নিজেকে প্রমাণ করতে চান তিনি।

সোমবার একাডেমি মাঠে রুবেল বলেন, ‘বিপিএলে আমি যেমন রিদমে ছিলাম, আমার কাছে মনে হয় আমি ঠিক আছি। মনে হয় আগের জায়গায় আসতে পেরেছি। আসল হচ্ছে আত্মবিশ্বাস। কয়েকটা ম্যাচে যদি রিদম নিয়ে বোলিং করা যায় আত্মবিশ্বাস চলে আসে। আমার আত্মবিশ্বাস আল্লাহর রহমতে ভালো আছে। এটা এখন মাঠে প্রমাণ করতে হবে আমাকে।’

বিপিএলে রংপুর রাইডার্সের হয়ে ১২ ম্যাচে ১৫ উইকেট নিয়েছেন রুবেল। জাতীয় দলে ফিরতে এই পারফরম্যান্সই তাকে সাহায্য করেছে বলে মনে করেন বাংলাদেশের হয়ে ২৩ টেস্ট, ৬৯ ওয়ানডে ১১ টি-টোয়েন্টি খেলা রুবেল। ‘বিপিএলটা আমার জন্য বড় একটা বিষয় ছিলো। ধারণা ছিলো ভালো পারফর্ম করলে হয়তো আমাকে নিতেও পারে। বিপিএলে ভালো করার চেষ্টা করেছি আমি। হয়তো ভালো পারফর্ম করার জন্য নির্বাচকরা আমাকে বিবেচনা করেছেন’-বলেন তিনি।

২০১৫ বিশ্বকাপে অ্যাডিলেডে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বল হাতে আগুন ঝরিয়েছিলেন রুবেল। চার উইকেট নিয়ে ইংলিশদের হারানোর পথে বড় অবদান রাখেন তিনি। এবার তেমন পরিবেশেই খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে রুবেল বলছেন, ‘নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে আমি খেলেছি। তবে ওখানকার কন্ডিশনে এখন বোলিং করাটা চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জটা আমাকে নিতে হবে। অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং ইংল্যান্ডে পেস বোলারদের জন্য সব সময় সহায়তা থাকে। আমরাও ওই জোর নিয়ে পেস বোলাররা যাচ্ছি।’

প্রথমে দলে ছিলেন না। শেষ মুহূর্তে এসে জায়গা হয়েছে। কী লক্ষ্য থাকবে? রুবেল বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে এখন আমি যাচ্ছি। যে কয়দিন অস্ট্রেলিয়াতে থাকব ভালোমতো অনুশীলন করবো মনোযোগ দিয়ে। নিউজিল্যান্ডে ম্যাচ খেলার সুযোগ পেলে অবশ্যই ভালো খেলার চেষ্টা করবো। আমি যেটাতে সুযোগ পাই আমাকে পারফর্ম করতে হবে। আমি আমার সেরা পারফরম্যান্স মাঠে দেখাতে চাই।’

খেলার সর্বশেষ নিউজ পেতে সঙ্গে থাকেন……….

%d bloggers like this: