Tag Archives: মোহাম্মদ আশরাফুল

ব্যাটসম্যানদের কড়া সমালোচনা করলেন আশরাফুল

বাজেভাবে আউট হওয়ায় ব্যাটসম্যানদের কড়া জবাব দিলেন টাইগার আশরাফুল। ব্যাটসম্যানদের আফসোস করা উচিৎ, মানছেন আশরাফুল। গল টেস্টে তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনে একেবারেই নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি বাংলাদেশ। সেখানে চার উইকেট হারিয়ে ৮০ রান করে বাংলাদেশ। আর এমন ব্যাটিং প্রদর্শণীর পর ব্যাটসম্যানদের আফসোস করা উচিৎ বলে মনে করছেন মোহাম্মদ আশরাফুল।

মধ্যাহ্ন বিরতিতে চ্যানেল নাইনে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে জাতীয় দলের সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, ‘উইকেট যেমন তাতে আমাদের লিড নেয়ার মতো সক্ষমতা ছিলো। কিন্তু আমরা ধৈয্য ধরে উইকেটে থাকতে পারিনি। ব্যাটসম্যানরা যেভাবে আউট হয়েছেন, আমার ধারণা প্রত্যেকেই এখন আফসোস করছেন।’

সর্বশেষ শ্রীলঙ্কা সফরে অসাধারণ ক্রিকেট খেলে বাংলাদেশ দল। সেই সময়কার দলে ছিলেন আশরাফুল। সেবার গলে ১৯০ রানের ইনিংস খেলা ক্রিকেটের এই সর্বকনিষ্ঠ এই সেঞ্চুরিয়ান বলেন, ‘মুশফিকদের খেলা দেখে আমার কাছে মনে হয়েছে, গলের এই উইকেট আগের মতোই আছে। ২০১৩ সালে আমরাও এমন উইকেটে খেলেছি। সেটি হলে এখানে আমাদের লিড় নেয়ার কথা ছিলো। কিন্তু আমরা বাজে শর্ট খেলতে গিয়ে আউট হয়েছি।’

ব্যাটসম্যানদের বড় ইনিংস খেলা উচিৎ ছিল বলে মনে করছেন আশরাফুল। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে সব চেয়ে খারাপ লাগছে, ব্যাটসম্যানরা উইকেটে সেট হওয়ার পরও বড় ইনিংস খেলতে পারেননি।

ব্যাটসম্যানরা নিজের ভুলের কারণে উইকেট হারিয়েছেন। আমার মনে হয়েছে, আমাদের বেশির ভাগ ব্যাটসম্যান, বোলারদের হাত ঘুড়ানো দেখেই ব্যাট চালিয়েছেন। যার কারণে একের পর এক উইকেট হারিয়ে আমরা ব্যাকফুটে চলে গেছি।’

দিনে ৭১ রান করে আউট হয়ে গেছেন সৌম্য সরকার। যেভাবে ব্যাট করছিলেন তাতে তাঁর একটা সেঞ্চুরি পাওয়া উচিৎ ছিল বলে মনে করেন আশরাফুল।

হঠাৎ করেই আলোচনায় আশরাফুল

টাইারদের শ্রীলঙ্কা সিরিজ মানেই আলোচনায় টেষ্ট ক্রিকেটের সর্বকনিষ্ঠ সেঞ্চুরিয়ান মোহাম্মদ আশরাফুল। কারনটা সবারই জানা এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই তার যত রেকর্ড। ক্যারিয়ারের ৬ সেঞ্চুরির ৫টিই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।

ক্যারিয়ার গড় যেখানে ২৪ সেখানে সিংহলিজদের বিপক্ষে অ্যাশের গড় ৪৫.৪১। শুধু তাই নয় বাংলাদেশীদের মধ্যে লঙ্কনদের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ১৩ ম্যাচে ১০৯০ রান তারই।

শ্রীলঙ্কা মানেই আশরাফুল আলোচনায় থাকবেন এটা স্বাভাবিক। সেটা তিনি দলের বাইরে

থাকুক আর ভিতরে। ক্রিকেট প্রেমিদের মন থেকে তো আর তার সেই নজর কারা ইনিংস গুলো মুছে ফেলা যাবে না।

প্রসঙ্গ, গত ৪ বছর যাবত ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দায়ে দেলের বাইরে আছে আশরাফুল।

মাশরাফি অবসর নিলে অবাক হবেন না আশরাফুল

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সহ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেও হোয়াইটওয়াশ হয়েছে বাংলাদেশ দল। তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচে ইনজুরিতে পড়েন অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজা। সিরিজ হারার পরই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানান টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে শীঘ্রই অবসর নিবেন অধিনায়ক মাশরাফি। তবে এই ব্যাপারে এখনো কিছুই জানাননি মাশরাফি।বোর্ড প্রধানের এমন নেতিবাচক মন্তব্যে ক্রিকেটাঙ্গনেও প্রভাব ফেলেছে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল জানান, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে অবসর নিলে অবাক হবেন না তিনি।

“দেখুন, মাশরাফির যতদিন খেলতে চায় ওকে খেলতে দেয়া উচিত। আপনি গত দুই বছরের কথাই ধরুন, অসাধারণ অধিনায়কত্ব করছে। তার নেতৃত্বে দল সাফল্যও পাচ্ছে। এ অবস্থায় ওকে ওর মতো সিদ্ধান্ত নিতে দেয়া উচিত।”

তিনি আরো যোগ করেন, “মাশরাফি আমার বন্ধু। দীর্ঘদিন ওর সঙ্গে খেলেছি। আমি জানি ও টি-টোয়েন্টি ততোটা উপভোগ করে না। নেতৃত্ব দিচ্ছে বলেই হয়তো নিয়মিত খেলছে। সত্যি বলতে কী ও টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দাড়ালে অবাক হবো না। কারণ, এটা ওর জন্য নয়।”

এসপিএল ফাইনালের নায়ক আশরাফুল

সিরাজগঞ্জ প্রিমিয়ার লিগের (এসপিএল) পুরো আসর জুড়েই ব্যাটে-বলে উজ্জ্বল ছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। আর মঙ্গলবার এই টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচে নায়কই বনে গেলেন বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক। ব্যাট হাতে ৪৩ এবং বল হাতে চার উইকেট নিয়ে দল সিরাজগঞ্জ টাইগার্সকে এনে দেন শিরোপাও।

এদিন টসে জিতে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ১৩২ রান সংগ্রহ করে আশরাফুলের দল। ৫৩ বল খেলে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন বাংলাদেশের সর্ব কনিষ্ঠ এই সেঞ্চুরিয়ান। আশরাফুল ছাড়াও সিরাজগঞ্জ টাইগার্সের হয়ে খেলেন জাতীয় দলের তারকা অলরাউন্ডার নাসির হোসেন। মি. ফিনিশার খ্যাত নাসিরের ব্যাট থেকে আসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩২ রান।

জবাবে ১৭.১ ওভারে ৮১ রানেই গুটিয়ে যায় সিরাজগঞ্জ সুপার কিংস। আশরাফুল চার ওভার বল করে মাত্র নয় রানের বিনিময়ে তুলে নেন প্রতিপক্ষের চার উইকেট। দল পায় ৫১ রানের বড় জয়। ম্যাচ সেরার পুরস্কারও পান বাংলাদেশ দলের এক সময়ের এই ‘আশার ফুল’।

পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই দেখা যায় আশরাফুল ঝলক। সাত ম্যাচ খেলে ব্যাট হাতে তার সংগ্রহ ৩০০ রান। এ ছাড়াও বল হাতে ৩৪ বছর বয়সী আশরাফুলের ঝুলিতে রয়েছে ১৫টি উইকেট।

এদিকে, গত রোববার অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে তিনবছর পর খেলতে নেমে দেখা পেয়েছিলেন সেঞ্চুরির। এ ছাড়াও শহীদ আফ্রিদির নেতৃত্বে বিশ্ব একাদশের হয়ে মাঠ মাতাতে দেখা যাবে আশরাফুলকে। আগামী ১৬ ও ১৮ ডিসেম্বর কাতারের জাতীয় দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হবে ‘ন্যাশনাল ডে ক্রিকেট কাপ’। সেখানে কাতারের বিপক্ষে বিশ্ব একাদশের ওয়ানডে দলে আছেন বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে মোহাম্মদ আশরাফুল গত তিনবছর নিষিদ্ধ ছিলেন। চলতি বছরের ১৩ আগস্ট সেই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হয়। সর্বশেষ জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) ঢাকা মেট্রোর হয়ে দেখা গেছে তাকে। তবে এখনও বিপিএলের মতো ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের আসরগুলোয় খেলতে পারছেন না তিনি। সেই নিষেধাজ্ঞা উঠে যেতে আরও দুবছর সময় লাগবে।

আবারো ব্যাট হাতে আশরাফুল ঝড়

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাস দুয়েক আগে ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। তবে হোম অব ক্রিকেটে এখনও পর্যন্ত তার ব্যাট হাতে নামা হয়নি।

 

অবশেষে নামলেন, তাও যেন বীরের মতো। রবিবার মিরপুরের শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে একটি প্রস্তুতি মাঠে নেমেই ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন এক সময় বাংলাদেশ দলের অপরিহার্য এই ব্যাটসম্যান। তার ১১০ বলে ১১৫ রানের সুবাদের আশরাফুলের দল নির্ধারিত ৫০ ওভারে সংগ্রহ করে ২২৪ রান।

 

শ্রীলংকাং অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ খেলতে মঙ্গলবার দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ যুবারা। এ কারণে রবিবার আনুষ্ঠানিকভাবে সংবাদিকদের মুখোমুখি হন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক সাইফ হাসান। এরপর বিকালে অনূর্ধ্ব-১৯ দল মাঠে নেমে পড়েন দিবা-রাত্রির প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে। সেখানেই তারা মুখোমুখি হয়েছে মোহাম্মদ আশরাফুলের নেতৃত্বাধীন লাল দলের। বিপক্ষে দলে ছিলেন সদ্য বিপিএল মাতানো আফিফ হোসেন। একজন স্পিনারের পাশাপাশি ছিল আরও বেশ কয়েকজন ভালোমানের পেসারও।

 

এদিকে, সেঞ্চুরির পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় টেস্ট ক্রিকেটের সর্বকনিষ্ঠ সেঞ্চুরিয়ান আশরাফুল বলেন, ‘নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে কোন প্র্যাকটিস ছাড়াই এই প্রথম হোম অব ক্রিকেট শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেই সেঞ্চুরি করলাম, তাও জাতীয় যুব দলের বিপক্ষে। খুবই ভালো লাগতেছে।

মাঠে নেমেই ৬০ রান ও ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হলেন আশরাফুল

ঢাকার বিপিএলের আদলে গড়া সিরাজগঞ্জ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত সিরাজগঞ্জ প্রিমিয়ার লিগ (এসপিএল) টি-টোয়েন্টি-২০১৬ টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছে।। আর এ টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছেন দেশের সেরা ক্রিকেটাররা। অংশ নিয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুলও। মাঠে নেমেই ম্যাচসেরা হয়েছেন অাশরাফুল।

উদ্বোধনী খেলায় অংশগ্রহণ করে সিরাজগঞ্জ টাইগার্স বনাম সিরাজগঞ্জ নাইট রাইডার্স। সিরাজগঞ্জ টাইগার্সের পক্ষে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল খেলায় অংশ নেন। সিরাজগঞ্জ টাইগার্স প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ১৪৮ রান করে।

জবাবে সিরাজগঞ্জ নাইট রাইডার্স সব উইকেট হারিয়ে ১৪৪ রান করে। ৪ রানে জেতেন আশরাফুলরা। আশরাফুল ৬০ রান করেন। পরে তিনটি উইকেট নিয়ে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হন।

শনিবার মাঠে নামছে মোহাম্মাদ আশরাফুল

ঘরোয়া ক্রিকেটে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে জাতীয় লিগে ফিরে ঢাকা মেট্রোর হয়ে বল হাতে চমক দেখালেও ব্যাট হাতে অনুজ্জ্বল ছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। বরিশালের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ২৬ আর দ্বিতীয় ইনিংসে আউট হয়েছেন ২ রান করে।

তিন ম্যাচের মধ্যে ব্যাটিংয়ে নামতে পেরেছেন ওই এক ম্যাচেই। বৃষ্টির কারণে অপর দুই ম্যাচে ব্যাট হাতে নামতে পারেননি ঢাকা মেট্রোর সাবেক এ অধিনায়ক।

শনিবার ২৬ নভেম্বর অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে খেলার সুযোগ পাচ্ছেন এ ক্রিকেটার। আগামী ২৬,৩০ নভেম্বর ও ০৫ ডিসেম্বর বিকেএসপিতে অনুষ্ঠিত হবে তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রতিপক্ষ অগ্রনী ব্যাংক। এ ক্লাবটির হয়েই খেলবেন মোহাম্মদ আশরাফুল।
গেম ডেভেলপম্যান্ট কমিটির এক কর্মকর্তা আশরাফুলের খেলার ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছেন। দুই দলের মাঝে ভারসাম্য আনতে বিসিবি আরও দুই ক্রিকেটারকে অগ্রনী ব্যাংকের হয়ে খেলার ‍সুযোগ দেবে।

ভক্তরা চাইছিলেন ফিরেই বড় একটা ইনিংস উপহার দিয়ে আবার আলোচনায় আসবেন আশরাফুল। আর এবার বড় ইনিংস খেলার কথাই ভাবছেন বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বকনিষ্ঠ এ টেস্ট সেঞ্চুরিয়ান।

প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেটে ১৮টি শতক ও ২৮টি অর্ধশতকের মালিক মোহাম্মদ আশরাফুল। তারপরও নিজেকে প্রমাণ করতে হচ্ছে তাকে। বিপিএলে ফিক্সিংয়ের কারণে তিন বছর ছিলেন ঘরোয়া ক্রিকেটের বাইরে।