Tag Archives: পাকিস্তান সুপার লিগ

পাকিস্তানে খেলতে চান সাকিব

বাংলাদেশের সেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান সর্বশেষ পাকিস্তানে খেলেছিলেন ২০০৮ সালে। এদিকে চলতি পাকিস্তান সুপার লিগে সাকিবের দল পেশোয়ার জালমি প্লে-অফে চলে গেছে।  পিএসএলের ফাইনাল পাকিস্তানের লাহোরে হবার কথা রয়েছে। তবে সাকিবের দল ফাইনালে উঠলেও খেলা হবে না এই অল-রাউন্ডারের। জাতীয় দলের খেলা থাকায় সাকিবকে পাবে না পেশোয়ার। তবে সাকিব ভবিষ্যতে পাকিস্তানে খেলতে যাবার বাসনার কথা জানিয়েছেন ।

 

দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের সাথে কথোকথনে সাকিব বলেন, ” আমি সর্বশেষ ২০০৮ সালে পাকিস্তানে খেলেছি। সেটা অনেক ভালো অভিজ্ঞতা ছিলো। সেখানের মাঠ, পরিবেশ, দর্শক, ভক্ত অসাধারণ। পাকিস্তানে সবকিছু ঠিক হলে আমি আবার খেলতে চাই।” 

পিএসএল পাকিস্তানের লিগ হবার পরেও অনুষ্ঠিত হচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। সাকিব মনে করেন, পিএসএল পাকিস্তানে হলে আরো বেশি উম্মাদনা তৈরী হবে। এই প্রসঙ্গে সাকিব বলেন, “যদি পিএসএল পাকিস্তানে হতো তাহলে সংযুক্ত আরব আমিরাতের থেকে অনেক বেশি উম্মাদনা ও উত্তেজনা থাকতো। বর্তমান পাকিস্তানের পরিবেশ অনেক কঠিন কিন্তু আমি আশা করি একদিন সব ঠিক হবে। পাকিস্তান আগের মতো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট ও সিরিজ আয়োজন করতে পারবে।”

এছাড়া পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের সাথেও ভালো রসায়নের কথা জানান সাকিব, “পাকিস্তানী ক্রিকেটারদের সাথে আমাদের রসায়ন অসাধারণ। আমার মনে হয়, আমি হোম টিমের সাথে খেলছি। কখনোই মনে হয় এটা বিদেশী দল।”

উল্লেখ্য, সাকিব ছাড়াও এবারের পিএসএলে তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ খেলেছিলেন।

পিএসএলে বল হাতে জ্বলে উঠলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (ভিডিওতে দেখুন উইকেটগুলো)

 

কোয়েটা গ্লাডিয়েটর্সের হয়ে বৃহস্পতিবার মাঠে নেমেছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বল হাতে জ্বলে উঠার পর ব্যাট হাতেও রান করেই ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন এই বাংলাদেশি।

টস জিতে ফিল্ডিংয়ে নেমে মাহমুদউল্লাহর উপর আস্থা রেখে তাকে দিয়ে টানা চার ওভার বল করান সরফরাজ। অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিতে ভুল করেননি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। চার ওভার বল করে ২১ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩টি উইকেট। তার শিকারে পরিণত করেন কুমার সঙ্গাকারা, বাবর আজম ও শোয়েব মালিকের মতো ব্যাটসম্যানদের।

এর আগেও তিন ম্যাচে মাঠে নেমেছিলেন মাহমুদউল্লাহ। বল ও ব্যাট হাতে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। প্রথম ম্যাচে ব্যাট হাতে করেছিলেন অপরাজিত ২৯ রান। পরের দুই ম্যাচে ব্যাট করার সুযোগ পাননি। তবে বল হাতে দ্বিতীয় ম্যাচে নিয়েছিলেন ১ উইকেট। আর তৃতীয় ম্যাচে ২৩ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি।

আজ নিজের চতুর্থ ম্যাচে অবশ্য পাকিস্তান সুপার লিগে এ পর্যন্ত তার সেরা বোলিংটা করে দেখালেন বাংলাদেশি এই তারকা। বোলিংয়ের পর ব্যাট হাতেও ৪ বলে ৮ রানে অপরাজিত থাকেন এই টাইগার।

তার এই পারফরম্যান্সে তার দল ৬ উকেটের সহক জয় তুলে নেয়। ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

আবারও শুরু হয়েছে সমালোচনা

বাংলাদেশ জাতীয় দলের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানটি অনেকদিন ধরেই ফর্মের বাইরে আছেন।  এ নিয়ে আবারও শুরু হয়েছে সমালোচনা।  ভারতের বিপক্ষে হায়দরাবাদ টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে তবু কিছু রান পেয়ে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ।  সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখলেন পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল) এ।  কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে পিএসএলে প্রথম ম্যাচেই অপরাজিত ইনিংস খেললেন রিয়াদ। 

 

বুধবার রাতে শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নামে রিয়াদের  দল।  আসাদ শফিক সর্বোচ্চ ৪৫ রান করলেও তা টি-টোয়েন্টি মেজাজের ছিল না।  এই রান করতে তিনি খরচ করেন ৪২টি বল! ১৫ বলে ২৬ রান করে আহমেদ শেহজাদ ফিরলে চাপে পড়ে কোয়েটা।  এরপর মাহমুদ উল্লাহর ২০ বলে ২ চার ১ ছক্কায় অপরাজিত ২৯ আর শ্রীলঙ্কার থিসারা পেরেরার ১৮ বলে ২৭ রানের ইনিংসে দলীয় সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৪৮ রানে দাঁড়ায়।

 

তবে দুঃখজনক বিষয় হলো এই সংগ্রহ নিয়ে জিততে পারেনি রিয়াদের দল।  ১৯ ওভার ১ বলে ৫ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌছে যায় ইসলামাবাদ।  ৫০ বলে ৮টি চার ও ৩টি ছক্কায় অপরাজিত ৭৮ রান করে দলকে একাই জয়ের বন্দরে নিয়ে যান স্যাম বিলিংস।  শেন ওয়াটসন করেন ২৭ বলে ৩৬ রান।  ম্যাচ সেরার পুরস্কার ওঠে বিলিংসের হাতেই।  বিপিএলের চতুর্থ আসরের টুর্নামেন্ট সেরা মাহমুদ উল্লাহ এ দিন বোলিং করেননি।

পাকিস্তান সুপার লিগের ম্যাচে