Tag Archives: ইমরান খান

পিএসএলের ফাইনাল লাহোরে আয়োজনের পরিকল্পনাটা পাগলামি: ইমরান খান

 নিরাপত্তা নিয়ে যথেষ্ট বিতর্ক থাকলেও পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) দ্বিতীয় আসরের শুরু থেকেই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিলো লাহোরে অনুষ্ঠিত হবে এর ফাইনাল ম্যাচটি। এ নিয়ে আলোচনায় বসে পিএসএলের আয়োজক কমিটি এবং ফ্রাঞ্চাইজি মালিকরা। সভা শেষে সিদ্ধান্ত হয়, বিদেশি ক্রিকেটাররা খেলুক আর না খেলুক, পিএসএলের দ্বিতীয় আসরের ফাইনালের ভেন্যু লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়াম।যদিও ব্যাপারটি দেশটির সরকারের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় ঝুলে আছে এখনও। ক্রিস গেইল, কুমার সাঙ্গাকারা, মাহেলা জয়াবর্ধনের মত অনেক তারকা বিদেশি ক্রিকেটারই ফাইনাল খেলতে লাহোর যেতে অপারগতা জানিয়ে দিয়েছে। তবুও পিএসএলের আয়োজক কমিটি এবং পিসিবি চাইছে লাহোরেই হোক ফাইনাল। এরই মধ্যে বোমা ফাটালেন পাকিস্তানের বিশ্বকাপজয়ী সাবেক অধিনায়ক ইমরান খান।

পাকিস্তানের সাবেক এই অধিনায়কের মতে, লাহোরে পিএসএলের ফাইনাল আয়োজন করা স্রেফ পাগলামি! দেশটির এক টিভি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন পাকিস্তানের এই কিংবদন্তি অলরাউন্ডার। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পিএসএলের ফাইনাল লাহোরে আয়োজনের পরিকল্পনাটা আমার কাছে পাগলামি মনে হচ্ছে।’

এছাড়া ফাইনাল লাহোরে হলে বেশিরভাগ বিদেশি খেলোয়াড়ের না খেলার সম্ভাবনা আছে। বিদেশি খেলোয়াড় ছাড়া ফাইনাল লাহোরে হলে সেটি পাকিস্তানের ক্রিকেটে কোনো কাজে আসবে না বলে মনে করেন ইমরান খান। আর ফাইনালের সময় যদি খারাপ কোনো ঘটনা ঘটে, তাহলে পাকিস্তানের ক্রিকেট দশ বছর পিছিয়ে যাবে বলেও মত ইমরানের, ‘সেখানে যদি খারাপ কোনো কিছু ঘটে তাহলে এটা পাকিস্তানের ক্রিকেটকে আরও দশ বছর পিছিয়ে নিয়ে যাবে।’

২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর থেকে পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একরকম নিষিদ্ধ। মাঝে শুধু জিম্বাবুয়ে সীমিত ওভারের সিরিজ খেলে গেছে। নিজেদের আবারও নিরাপদ প্রমাণ করতেই পিসিএলের ফাইনাল লাহোরে করার ঘোষণা দেয় পিসিবি। চলতি মাসের শুরুর দিকে লাহোরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় ১৩ জন মানুষ নিহত হওয়ার পরও নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় দেশটির সর্বোচ্চ ক্রীড়া সংস্থাটি।

পাকিস্তানের রাজনৈতিক দল তেহরিক-ই-ইনসাফের প্রধান ইমরানের মতে, এমন আয়োজন কোন শুভবার্তা বয়ে আনবে না। এ প্রসঙ্গে ইমরান খান বলেন, ‘পিএসএল এর ফাইনাল পাকিস্তানে আয়োজনের পয়েন্টটা কি? এটা তো কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচও নয়। আমার মতে এটা ভয়ঙ্কর চিন্তা। এই ম্যাচ উপলক্ষে হয়তো আমারা আর্মি ডেকে এনে, রাস্তা অবরোধ করে খেলা আয়োজন করব। তাই এই প্রক্রিয়া কোন শুভবার্তা দিবে না। এই ধরনের পরিস্থিতির মধ্যে আমরা কী শান্তির বার্তা পাঠাব।’

পিসিএলের প্রথম আসরের পুরোটাই হয়েছিল সংযুক্ত আরব আমিরাতে। দ্বিতীয় আসরেরও ফাইনাল বাদে পুরোটা আরব আমিরাতেই হচ্ছে। আগামী পাঁচ মার্চ পিএসএলের দ্বিতীয় আসরের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্রঃ এনডিটিভি

বাংলাদেশকে অনুসরণ করতে বললেন ইমরান

সাকিব, তামিম, মুশফিকদের প্রশংসা করেছেন পাকিস্তানের বিশ্বকাপ জয়ী এই অধিনায়ক। এছাড়া, পাকিস্তানের ক্রিকেট কি ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে? বেশ ক্ষুব্ধ হয়ে পিসিবি চেয়ারম্যানের কাছে প্রশ্নটি রেখেছেন কিংবদন্তি ইমরান খান।

তিনি বলেন, এখন ক্রিকেটাররা যা খেলছেন তাকে ক্রিকেট না বলে তামাশাই বলা উচিত। ইমরান খান নিজ দেশের ক্রিকেট নিয়ে এতটা শঙ্কিত যে, আগামী বিশ্বকাপে পাকিস্তান সরাসরি খেলার সুযোগ পাবে কিনা তা নিয়েও সন্দিহান।

 

সম্প্রতি নিউজিল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া সফরে একরাশ হতাশা উপহার দিয়েছে পাকিস্তান। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একটি ওয়ানডে জিতলেও দুটি সিরিজেই পরাজয়ের গ্লানি নিয়ে দেশে ফিরেছে পাকিস্তান।

ইমরান মনে করেন, এ অবস্থা চলতে থাকলে পাকিস্তানের ক্রিকেট শেষ হয়ে যাবে। বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের ক্রিকেট নিয়ে এক সেমিনার হয়।

সেখানে বক্তব্য রাখেন ’৯২ বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ও তেহরিক-ই-ইনসাফের প্রধান ইমরান খান। তিনি পাকিস্তান সরকারকে পরামর্শ দিয়েছেন, যাদের ভিতরে দেশাত্মবোধ আছে এমন লোকদের হাতেই ক্রিকেটের দায়িত্ব তুলে দেওয়া উচিত। তা না হলে পাকিস্তানের ক্রিকেট ধ্বংস হয়ে যাবে।

তোষামোদকারীদের দিয়ে কোনোভাবে ক্রিকেটের উন্নয়ন সম্ভব নয়। ইমরান ক্রিকেটারদের দেশাত্মবোধ নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন। উদাহরণ হিসেবে তিনি বাংলাদেশের প্রসঙ্গও টানেন। সুন্দর পরিকল্পনা করে বাংলাদেশের ক্রিকেট আজ কোথায় পৌঁছে গেছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বিপক্ষে সর্বশেষ দ্বি-পাক্ষিক তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে, সব কয়টি ম্যাচ হেরে বাংলা ওয়াশ হয় ১৯৯২ সালে ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়ী পাকিস্তান ক্রিকেট দল।

খেলার সর্বশেষ নিউজ পেতে সঙ্গে থাকেন……….

%d bloggers like this: