স্মিথ-ওয়ার্নারদের বাংলাদেশে না আসার হুমকি

নানা অজুহাতে বাংলাদেশে সফর পেছানোর ক্ষেত্রে জুড়িমেলা ভার ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার। তবে, এবার তারা পাকা কথা দিয়েছে, দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে দল পাঠাবেই। শুধু তাই নয়, বাংলাদেশ সফরের উদ্দেশ্যে ইতিমধ্যে তারা দলও ঘোষণা দিয়ে ফেলেছে।

কিন্তু এবার বাধ সাধতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা। তারা হুমকি দিয়েছে, সময়মত দাবি মেনে না নিলে বাংলাদেশ সফরেই আসবে না তারা। ক্রিকেটারদের মুখপাত্র হয়ে এই হুমকিটি দিয়েছেন ওপেনার এবং দলের সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার।

সমস্যাটা মূলতঃ ক্রিকেটারদের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের। খেলোয়াড়দের বেতন-ভাতা, রাজস্বের অংশীদারিত্বের বিষয়েই বোর্ডের সঙ্গে দীর্ঘদিনের বিরোধ ক্রিকেটারদের। নতুন করে যে নীতিমালা প্রনয়ণ করা হয়েছে, তাতে ক্রিকেটারদের সুযোগ-সুবিধা কমিয়ে দেয়া হয়েছে অনেকাংশে। সে কারণেই দীর্ঘদিন আন্দোলন করে আসছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা।

পুরনো চুক্তির মেয়াদ শেষ হতে আর দুই সপ্তাহও বাকি নেই। তারও অনেক কম সময়। এরই মধ্যে নতুন চুক্তি করা না হলে বাংলাদেশ সফরে আসবে না বলে হুমকি দিয়ে রাখলেন ওয়ার্নার। নতুন করে চুক্তি না হলে ১ জুলাই থেকে বেকার হয়ে যাবেন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা। সে ক্ষেত্রে তারা পরবর্তী সফরগুলোতেও না যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

নিজেদের দাবি-দাওয়া টেশ করে ডেভিড ওয়ার্নার বলেছেন, ‘আমাদের দাবি বেশ পরিষ্কার, আইসিসির দেওয়া রাজস্বের যে অংশ আগে ক্রিকেটাররা পেত, সেটা আমাদের দিতে হবে। শুধু জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের জন্য সেই অংশটা ঘরোয়া লীগ খেলা ক্রিকেটার এবং নারী ক্রিকেটারদেরও দিতে হবে। তা না হলে আমরা চুক্তি করব না। আর চুক্তি না করলে বাংলাদেশ সফরে আমরা কেউই যাব না।’

ক্রিকেটার এবং বোর্ডের সঙ্গে এই বিরোধ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শুরুর আগে থেকেই। এ নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে কয়েক দফা আলোচনা হয়েছে দেশটির ক্রিকেটারদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট সংস্থা অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের (এসিএ) সঙ্গে; কিন্তু রোববার পর্যন্ত সেই আলোচনা থেকে কোনো ফল বের হয়ে আসেনি।

এ সপ্তাহেই দু’পক্ষের মধ্যে আরেকটি বৈঠক হওয়ার কথা, সেখান থেকে ফলপ্রসূ কিছু না এলে আগস্টে বাংলাদেশ সফরে আসবে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের কেউ।

মূলতঃ ওয়ার্নার আর স্মিথদের মতো কয়েকজন শীর্ষ ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাদা চুক্তি করতে চেয়েছে বোর্ড। সেখানে তাদের রাজস্বের ২২ দশমিক ৫ শতাংশ দিতেও চেয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ); কিন্তু ওয়ার্নারা চান এই অংশটা অস্ট্রেলিয়ার সব ক্রিকেটাররাই যেন পায়। এখানেই যত বিরোধ বোর্ডের সঙ্গে। কারণ ওয়ার্নারদের প্রস্তাবে রাজি হচ্ছে না তারা।

এমনকি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি চলার সময়ও বোর্ডপ্রধান জেমস সাদারল্যান্ড হুমকি দিয়েছেন চুক্তি না করলে ১ জুলাই থেকে বেতন বন্ধ হয়ে যাবে সবার। তাতে ভীষণভাবে ক্ষুব্ধ হয়েছেন ওয়ার্নার। তিনি বলেন, ‘আমরা অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলতে চাই, এটাই আমাদের মূল লক্ষ্য; কিন্তু যদি আমাদের সঙ্গে চুক্তি না হয়, তাহলে এই মৌসুম আমরা কোথাও খেলতে পারব না। শুধু বাংলাদেশ সফরই নয়, অ্যাশেজ সিরিজেও খেলা হবে না আমাদের। চুক্তি না হলে আমরা অনুশীলনও করতে পারব না। সব কিছু থেকে আমরা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ব। এটা খুব হতাশার খবর হবে যদি আগামী সপ্তাহের মধ্যে চুক্তি না হয়।’

বাংলাদেশ সফরের লক্ষ্যে আগামী ১৮ আগস্ট ঢাকায় আসার কথা অস্ট্রেলিয়া দলের। ফতুল্লায় তিন দিনের একটি প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে সফর। ২৭ আগস্ট থেকে মিরপুরে প্রথম টেস্ট শুরু হওয়ার কথা। চট্টগ্রামে দ্বিতীয় টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে ৪ সেপ্টেম্বর।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s