অথচ ফাইনাল ম্যাচ খেলা নিয়ে ভয়ে ছিলেন ফখর

পাকিস্তান দলে তার অভিষেকই হয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে। সেভাবে তাকে চিনেও ওঠেনি ক্রিকেটবিশ্ব। এমন একজন ব্যাটসম্যানকে নিয়ে হয়তো মাথা ব্যথা ছিলো না ভারতের। কিন্তু এই ব্যাটসম্যানই কাল হয়েছে ভারতের জন্য। ভারতের বোলিং লাইনআপ গুড়িয়ে দিয়ে ১১৪ রানের মহাকাব্যিক এক ইনিংস খেলেছেন পাকিস্তান ওপেনার ফখর জামান। অথচ ফাইনাল ম্যাচ খেলা নিয়ে ভয়ে ছিলেন বাঁ-হাতি এই ব্যাটসম্যান।

পাকিস্তান ক্রিকেট দলের ফিজিও শেন হায়েসকে ম্যাচের আগেরদিন ফখর জানিয়েছিলেন, ম্যাচের দিন ফিট হয়ে উঠতে পারবেন কি না তা নিয়ে সংশয়ে আছেন। ম্যাচসেরা পুরস্কার জেতা ফখর আগেরদিন অনুশীলনের সময় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন।

অবস্থার খারাপ হওয়ায় অনুশীলন ছেড়ে হোটেলে ফিরতে হয় তাকে। মাঝে বেশ কয়েকবার বমি হয়। যে কারণে পাকিস্তানের মেডিকেল স্টাফরা জানিয়েছিলো ফাইনালে নাও দেখা যেতে পারে ২৭ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যানকে। কিন্তু রাতে নিঃশব্দ ঘুম দেয়া ফখর ম্যাচের দিন সকাল সাতটায় রিপোর্ট করেন, ম্যাচের জন্য তিনি পুরোপুরি ফিট।

ভারতের বিপক্ষে ক্ষেপাটে স্টাইলে সেঞ্চুরি করে শিরোপা জয়ে দারুণ অবদান রাখা ফখর ম্যাচের পর অসুস্থতার ব্যাপারে বলেন, ‘অনুশীলনে যাওয়ার পর ভালো লাগছিলো না। নেটে ৫-১০টি বল খেলার পর কোচকে বলি, আমার ভালো লাগছে না। আজ আমি অনুশীলন করতে চাই না।’

কোচ মিকি আর্থার শিষ্যের সমস্যা বুঝতে পেরেছিলেন। তাই চিরশত্রু ভারতের বিপক্ষে ফাইনাল ম্যাচ থাকার পরও ফখরকে অনুশীলন থেকে ছেড়ে দেন। সোজা হোটেলে চলে যান পাকিস্তান ওপেনার। ড্রেসিংরুমে গিয়ে অঙ্গমর্দক ও ফিজিওকে ফখর বলেন, ‘আমি ড্রেসিংরুমে গিয়ে তাদের বলি আমার ভালো লাগছে না, আমি অনুশীলন করতে পারছি না।’

এমন অবস্থায় তাকে হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়। ফখরের সাথে সারা রাত থাকেন ফিজিও শেন হায়েস। প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়ার পাশাপাশি ফখরকে সাহস যোগাতে থাকেন পাকিস্তান দলের এই ফিজিও। যেটা কাজে দেয়। এ ব্যাপারে ফখর বলেন, ‘সকালে ঘুম ভাঙলে আমি ভালো বোধ করি। সাতটার দিকে আমি এক বার্তায় জানাই, “ধন্যবাদ শেন, আমি ভালো বোধ করছি”।’

আর বিকালেই তো রণমূর্তি ধারণ করেন পাকিস্তানের হয়ে চারটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলা ফখর জামান। তার ব্যাট হয়ে ওঠে খোলা তলোয়ার। ১০৬ বলে ১২ চার ও তিন ছয়ে খেলেন ১১৪ রানের অসাধারণ এক ইনিংস। তার এই ইনিংসের সুবাদেই বড় সংগ্রহের পথে অনেকটা এগিয়ে যায় প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা জেতা পাকিস্তান।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s