১১ বছর পর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ফিরেই বাজিমাত বাংলাদেশের। গত বিশ্বকাপের দুই ফাইনালিস্ট অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডকে বিদায় করে দিয়ে প্রথমবারেরমত আইসিসির সর্বোচ্চ পর্যায়ের কোনো টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে খেলবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে অবিস্মরণীয় এক অর্জন এটা।

আগের দিন কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে নিউজিল্যান্ডকে অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সে হারিয়ে দিয়ে সেমির আশা জোরালোভাবে টিকিয়ে রেখেছিল বাংলাদেশ। এরপর আশা ছিল, ইংল্যান্ডের কাছে অস্ট্রেলিয়া হারলেই হবে। শেষ পর্যন্ত সেই আশা পূরণ হয়ে গেলো। অস্ট্রেলিয়াকে বৃষ্টি আইনে ৪০ রানে হারিয়ে ইংল্যান্ড সেমিতে টেনে তুললো বাংলাদেশকেও। ‘এ’ গ্রুপের রানারআপ হয়ে শেষ চারে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের সেমিফাইনাল নিশ্চিত হওয়ার পরপরই হিসাব-নিকাশ শুরু হয়ে গেছে, কে হচ্ছে সেমিতে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ। ভারত না দক্ষিণ আফ্রিকা, নাকি শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তানের কেউ। সেই প্রতিপক্ষকে হারিয়ে ফাইনালে যেতে পারবে তো বাংলাদেশ?

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সূচি অনুযায়ী বাংলাদেশ খেলবে দ্বিতীয় সেমিফাইনাল। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে এজবাস্টনে। বাংলাদেশ সময় বিকল সাড়ে ৩টায় শুরু হবে ম্যাচটি। ‘বি’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন দলের মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ।

‘বি’ গ্রুপে যে হিসেব দাঁড়িয়েছে, তাতে ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকার একটি দলকে বিদায় নিতেই হচ্ছে। তাতে কোনো সন্দেহ নেই। আবার পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কার মধ্যেও একটি দলকে বিদায় নিতে হবে। আগামীকাল কেনিংটন ওভালে মুখোমুখি হচ্ছে ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকা।

যে হারবে তারই বিদায় নিশ্চিত। আর যে জিতবে তার গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। ‘বি’ গ্রুপে চারটি দলেরই একটি করে জয়। পয়েন্ট সমান ২ করে। রান রেটে যদিও এগিয়ে ভারত। তবে শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান ম্যাচে জয়ী দল যদি অনেক বড় ব্যবধানে জিতে যায়, তাহলে রান রেট পরিবর্তনও হয়ে যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন এবং রানারআপেও আসতে পারে পরিবর্তন।

সুতরাং, এখনই বলা যাচ্ছে না, সেমিতে কাকে পাচ্ছে বাংলাদেশ। তবে, ভারত কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকা হওয়ারই সম্ভাবনা বেশি।

Advertisements