লক্ষ্য নাগালে বাংলাদেশের

কেন উইলিয়ামসন ও রস টেলর যেভাবে ব্যাট করছিলেন, তাতে রান চলে যাওয়ার কথা তিনশোর ওপরে। এমনটাই হয়তো ভেবেছিলেন অনেকে। কিন্তু তাদের ধারণা ভুল প্রমাণিত করেন বাংলাদেশের বোলাররা। সাকিব আল হাসান, ও মাশরাফি বিন মর্তুজা উইকেটের দেখা না পেলেও নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেছেন।

মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন ও মোস্তাফিজুর রহমান উইকেট ভেঙেছেন। টাইগারদের ফিল্ডিংটাও হয়েছে দারুণ। সব মিলে নিউজিল্যান্ডকে (৮ উইকেটে) ২৬৫ রানে থামিয়েছে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য মাশরাফি বাহিনীর দরকার ২৬৬ রান।

কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দারুণ সূচনাই পায় নিউজিল্যান্ড। কিউইদের ওপেনিং জুটি বেশ জমে উঠেছিল। লুক রনকি ও মার্টিন গাপটিলের মধ্যকার এই জুটি ভাঙেন তাসকিন আহমেদ। দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে লুক রনকিকে সাজঘরে ফেরান বাংলাদেশি এই পেসার। তাসকিনের বল মিড উইকেটে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মোস্তাফিজুর রহমানের হাতে ধরা পড়েন রনকি। ১৮ বলে দুটি চারে ১৬ রান করেছেন তিনি।

দেখেশুনেই ব্যাট করছিলেন মার্টিন গাপটিল। উদ্বোধনী জুটিতে লুক রনকিকে নিয়ে তোলেন ৪৬ রান। রুবেল হোসেনের কাছে ধরাশায়ী হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। গুড লেন্থের বলে ব্যাট চালাতে গিয়ে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন কিউই ওপেনার। বিদায়ের আগে ৩৫ বলে চারটি চার ও একটি ছক্কায় ৩৩ রান করেন গাপটিল।

তিনে ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ডকে টানেন কেন উইলিয়ামসন। তৃতীয় উইকেটে রস টেলরকে নিয়ে ৮৩ রানের জুটি গড়েন কিউই অধিনায়ক। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৩১তম ফিফটিও পেয়ে যান। ক্রমশই ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা উইলিয়ামসন সাজঘরে ফেরেন রান আউটে কাটা পড়ে। রস টেলরের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝির কারণে এ পরিণতির শিকার হন ৫৭ রান করা উইলিয়ামসন।

উইলিয়ামসনের পর ফিফটি তুলে নিয়েছেন রস টেলরও। ওয়ানডেতে টেলরের এটি ৩৭তম হাফ সেঞ্চুরি। ৮২ বলে ৬টি চারের মারে করেছেন ৬৩ রান। তাসকিনের বল স্কুপ করতে গিয়ে ফাইন লেগে মোস্তাফিজের হাতে ধরা পড়েন টেলর।

তিন বলের ব্যবধানে দুই উইকেট তুলে নিয়ে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরান মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ৪৪তম ওভারের প্রথম বলে নেইল ব্রুমকে (৩৬) তামিম ইকবালের তালুবন্দি করান তিনি। ওই ওভারের তৃতীয় বলে কোরি অ্যান্ডারসনকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন মোসাদ্দেক। অ্যান্ডারসন খুলতে পারেননি রানের খাতাই।

ব্যক্তিগত তৃতীয় ওভারে বল হাতে আবার ঝলক দেখালেন মোসাদ্দেক। এবার তিনি প্যাভিলিয়নের পথ দেখালেন জিমি নিশামকে। দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে নিশামকে মুশফিকুর রহীমের স্ট্যাম্পিংয়ের শিকারে পরিণত করেন ২১ বছর বয়সী অলরাউন্ডার। ২৩ রান করেন নিশাম।

বাংলাদেশের পক্ষে ৩টি উইকেট নিয়েছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। দুটি উইকেট লাভ করেছেন তাসকিন আহমেদ। মোস্তাফিজুর রহমান ও রুবেল হোসেন পকেটে পুরেছেন একটি করে উইকেট।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s