শেষ চারের সুযোগ দেখছেন মাশরাফি

১৮২ রানের পুঁজি নিয়ে স্বস্তিতে থাকার উপায় ছিলো না। তার ওপর অস্ট্রেলিয়া যেভাবে ব্যাট করছিলো হার খুব কাছেই দেখতে পাচ্ছিলো বাংলাদেশ। এ যাত্রায় ভাগ্যকে সাথে পেয়েছে মাশরাফিবাহিনী। বৃষ্টিতে ভেসে গেছে ম্যাচ। হারের বদলে মিলেছে এক পয়েন্ট। এই এক পয়েন্টই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বাংলাদেশকে টিকিয়ে রেখেছে।

শুরু হয়েছে নতুন হিসাব নিকাশ। খোঁজা হচ্ছে সেই রাস্তা, যেখানে হাঁটলে মিলবে শেষ চারের টিকেট। তবে এ রাস্তায় কঠিন পরীক্ষাই অপেক্ষা করছে বাংলাদেশের জন্য। একই সাথে ভাগ্যের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে তামিম-সাকিব-মুশফিক-মুস্তাফিজদের। এতোকিছুর পরও আশা ছাড়ছেন না মাশরাফি বিন মুর্তজা। শেষ চারে ওঠার সুযোগ দেখতে পাচ্ছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

সোমবার ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার পর মাশরাফিকে প্রশ্ন করা হলো, এক পয়েন্ট পেয়েছেন। এখান থেকে সুবিধা নিয়ে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিফাইনালে যেতে পারবেন? ভরকে গেলেন না বাংলাদেশ অধিনায়ক। রাস্তাটা কঠিন জেনেও চ্যালেঞ্জটা নিয়ে নিলেন তিনি।

মাশরাফি বলছেন, ‘এটা কেউই জানে না। ২০১৫ বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ থেকে এক পয়েন্ট পেয়েছিলাম এবং শেষ আটে উঠেছিলাম। ওটা আমাদের খুবই সাহায্য করেছিলো। এখনো আমাদের একটি সুযোগ আছে। নিউজিল্যান্ডকে হারানোসহ কিছু ম্যাচের ফলের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। আমাদের কাজ এখন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নিজেদের সেরাটা দিয়ে খেলা। কে জানে যেতেও পারি।’

আজ ভাগ্যকে সাথে পেয়েছেন বলে মনেহয়? মেনে নিলেন মাশরাফি, ‘অবশ্যই। আজকের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া আমাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে ছিলো। ঠিক অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নিউজিল্যান্ড যেমন অবস্থায় ছিলো। টিকে থাকতে হলে অস্ট্রেলিয়াকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জিততেই হবে। আর আমাদের দারুণ একটা সুযোগ নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে শেষ চারে ওঠার। তো দেখা যাক কি হয়।’

শেষ চারের টিকেট নিতে ইংল্যান্ডের সমর্থক হয়ে উঠতে হবে বাংলাদেশকে। সাথে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের হার কামনা করতে হবে। পাশাপাশি বাকি থাকা একমাত্র ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকেও হারাতে হবে বাংলাদেশকে। হিসাবটা হবে এমন- অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড যদি ইংল্যান্ডের কাছে হেরে যায় এবং বাংলাদেশ যদি নিউজিল্যান্ডকে হারায় তাহলে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে তিন। অস্ট্রেলিয়ার পয়েন্ট হবে তিন এবং নিউজিল্যান্ডের দুই। তাহলে শেষ চারের টিকেট পেয়ে যাবে মাশরাফিবাহিনী।

আরো একটি সমীকরণ আছে সেমিফাইনালে ওঠার। কিন্তু যেটা আরো কঠিন। এর জন্য নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ডকে হারতে হবে। একইসাথে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বড় ব্যবধানে জিততে হবে বাংলাদেশকে। এমন হলে অস্ট্রেলিয়ার পয়েন্ট হবে চার। বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের সমান তিন পয়েন্ট হবে। তখন রান রেটের হিসাবে যারা এগিয়ে থাকবে তারাই উঠবে শেষ চারে।

সেমিফাইনালে জায়গা করে নেয়াটা কতোটা কঠিন হবে সেটা বুঝতে পারছেন মাশরাফি। মাঠে উজাড় করে দিতে সেরাটা, সাথে লাগবে ভাগ্যের সহায়তা। এসময় দর্শকদেরও পাশে চান বাংলাদেশ অধিনায়ক, ‘ইংল্যান্ডে প্রচুর দর্শক মাঠে এসে আমাদের সমর্থন দেবে এটা আমাদের জানা ছিলো। শেষ ম্যাচে আমরা প্রচুর দর্শকের সমর্থন পেয়েছি। সামনের ম্যাচেও আমরা এমনই আশা করছি।’

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s