ওয়ানডে র্যাংকিংয়ের শীর্ষ আট দল নিয়ে এক জুন শুরু হবে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসে অনুষ্ঠেয় মর্যাদার এই ক্রিকেটীয় লড়াইয়ে দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে মাঠে নামবে আট দল। টুর্নামেন্টের ‘এ’ গ্রুপে বাংলাদেশ প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবে স্বাগতিক ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। অন্যদিকে ‘বি’ গ্রুপে পড়েছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির বর্তমান শিরোপা জয়ী দল ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা ও দক্ষিণ আফ্রিকা। অংশগ্রহণকারী আট দলের মধ্যে অভিজ্ঞতার দিক দিয়ে চতুর্থ অবস্থানে থাকলেও ‘এ’ গ্রুপে অভিজ্ঞতার দিক থেকে শীর্ষে আছে বাংলাদেশ।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির জন্য ঘোষিত বাংলাদেশে স্কোয়াডে থাকা ১৫ ক্রিকেটার মিলে খেলেছেন ১১৫৬টি ওয়ানডে ম্যাচ। যা ‘এ’ গ্রুপে বাকি তিন দলের চেয়ে বেশি। ১৭৫টি ওয়ানডে খেলে অভিজ্ঞতার বিচারে শীর্ষে আছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। দলের অন্যতম সিনিয়র খেলোয়াড় বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান খেলেছেন ১৭৩টি ম্যাচ। এছাড়া মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও তামিম ইকবালের অভিজ্ঞতার ঝুলিও বেশ ভরপুর।

অন্যদিকে এবারের আসরের হট ফেবারিট বলা হচ্ছে আয়োজক ইংল্যান্ডকে। অভিজ্ঞতা কম হলেও শক্তির দিক থেকে অনেক এগিয়ে আছে তারা। স্কোয়াডের ১৫ ক্রিকেটারের সম্মিলিত অভিজ্ঞতা হচ্ছে ৮০৮ ম্যাচ। ১০০ এর অধিক ম্যাচ খেলা একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে আছেন ইংলিশ অধিনায়ক ইয়ন মরগান।

‘এ’ গ্রুপের অন্য দল নিউজিল্যান্ডও শিরোপার জন্যই মাঠে নামবে। তারুণ্য ও অভিজ্ঞতাকে পূঁজি করে স্কোয়াড সাজিয়েছে নিউজিল্যান্ড। ব্ল্যাক ক্যাপদের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার রস টেলরের নামের পাশে আছে ১৮৭টি ম্যাচ। স্কোয়াডের ক্রিকেটারদের খেলা মোট ম্যাচের সংখ্যা ১০৩৩।

আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির এবারের আসরে সবচেয়ে অনভিজ্ঞ দল অস্ট্রেলিয়া। ১০০ এর অধিক ম্যাচ খেলা কোনো ক্রিকেটার নেই অস্ট্রেলিয়ার স্কোয়াডে। সবচেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার স্টিভ স্মিথ। তিনি খেলছেন ৯৫ টি ওয়ানডে ম্যাচ। স্কোয়াডের ক্রিকেটারদের মোট ম্যাচের সংখ্যা ৬০৭।

এক জুন কেনিংটন ওভালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩:৩০ মিনিটে শুরু হবে ম্যাচটি। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে দেশের দুই বেসরকারি টিভি চ্যানেল মাছরাঙা ও গাজী টিভি।

Advertisements