চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে মুস্তাফিজসহ যে আট ক্রিকেটারের উপর নজর থাকবে

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির মাঠের লড়াই শুরু হতে বাকি এখনও ১৩ দিন। ইতিমধ্যেই টুর্নামেন্ট নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে। বিভিন্ন দেশের সাবেক-বর্তমান ক্রিকেটারদের মধ্যেও উত্তেজনার পারদ ঊর্ধ্বমুখী। পিছিয়ে নেই ভক্ত, সমর্থক ও ক্রিকেটপ্রেমীরাও। তারাও বাজি ধরছেন নিজেদের পছন্দের ক্রিকেটারকে নিয়ে।

এবার সেই তালিকায় নাম লিখিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। জুনের এক তারিখ থেকে অনুষ্ঠেয় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে আলো ছড়াতে পারেন এ

 

মন আট তরুণ ক্রিকেটারের তালিকা প্রকাশ করেছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। আইসিসির এই তালিকায় আছেন বাংলাদেশি পেসার সেনসেশন মুস্তাফিজুর রহমানও।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অংশ নেওয়া প্রতিটি দলের একজন করে তরুণ ক্রিকেটার আছেন আইসিসির এই তালিকায়। এই তালিকার অধিকাংশ ক্রিকেটারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছে ২০১৫ সালের দিকে। মুস্তাফিজ ছাড়াও আইসিসির এই তালিকায় রয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার কাগিসো রাবাদা, নিউজিল্যান্ডের মিশেল সান্টনার, পাকিস্তানের বাবর আজম, শ্রীলঙ্কার কুশল মেন্ডিস, ভারতের জাসপ্রিত বুমরাহ, অস্ট্রেলিয়ার প্যাট কামিন্স। স্বাগতিক ইংল্যান্ড থেকে জায়গা হয়েছে স্যাম বিলিংসের।

আন্তর্জাতিক অভিষেকের পর গেল দুই-তিন বছরে প্রত্যেকেই কোনো না কোনোভাবে আলো ছড়িয়েছেন। বিশ্ব ক্রিকেটে নিজেদের পরিচয় করিয়েছেন অন্যভাবে। তাই আইসিসি বলছে, এবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে চোখ রাখুন এই আট তরুণ ক্রিকেটারের দিকে।

কাগিসো রাবাদা (দক্ষিণ আফ্রিকা)

Kagiso Rabada

মাত্র ২১ বছর বয়স হলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ইতিমধ্যে নিজেকে আলাদাভাবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ফাস্ট বোলার কাগিসো রাবাদা। দুর্দান্ত গতির বলকেও সুইং করানোর দক্ষতা, নিখুঁত ইয়ার্কার, সঠিক বাউন্সার তাকে প্রোটিয়াদের বোলিং আক্রমণের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হিসেবে পরিণত করেছে।

রাবাদার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিলো ২০১৫ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে। অভিষেক ম্যাচে মাত্র ১৬ রান খরচায় হ্যাটট্রিকসহ ছয় উইকেট নিয়ে বিশ্ব ক্রিকেটের নজর কাড়েন রাবাদা। ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে অভিষেক ম্যাচে হ্যাটট্রিক করা দ্বিতীয় বোলার তিনি। তার আগে ওয়ানডেতে অভিষেক ম্যাচে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে হ্যাটট্রিক করার রেকর্ড গড়েন বাংলাদেশি বাঁ-হাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম।

মিশেল সান্টনার (নিউজিল্যান্ড)

Mitchell Santner made his international debut in 2015, stepping out of the shadow of Daniel Vettori following the latter’s retirement

মিশেল সান্টনারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক দেশটির অন্যতম সফল অধিনায়ক ড্যানিয়েল ভেট্টরির অবসরের পর ২০১৫ সালে। শুরু থেকেই সান্টনারের মধ্যে ভেটরির ছায়া দেখতে পাওয়া যাচ্ছে। বাঁ-হাতি এই অলরাউন্ডার ইতিমধ্যেই নিজেকে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই ‘অটোমেটিক চয়েস’ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

২০১৬ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দারুণভাবে আলো ছড়িয়েছেন নিউজিল্যান্ডের হয়ে ১৫ টেস্ট, ৩২ ওয়ানডে ও ১৪ টি-টোয়েন্টি খেলা সান্টনার। নিজেদের প্রথম ম্যাচেই স্বাগতিক ভারতের বিপক্ষে ১১ রানেই চার উইকেট তুলে নেন ২৫ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার। ক্রিকেটের এই ফরম্যাটে এটাই তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগার।

বাবর আজম (পাকিস্তান)

In the series against West Indies in the UAE, Babar Azam notched up three consecutive centuries, helping his side to a clean sweep

বাবর আজমের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিলো ২০১৫ সালে, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। অভিষেক ম্যাচেই হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন পাকিস্তানি এই তরুণ ব্যাটসম্যান। এরপর ২০১৬ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের তিন ম্যাচেই সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে হৈচৈ ফেলে দেন ক্রিকেট পরিবার থেকে উঠে আসা বাবর আজম।

তিন ওয়ানডেতেই ম্যাচ সেরার পুরষ্কার জেতার পাশাপাশি ম্যান অব দ্য সিরিজ নির্বাচিত হন তিনি। তিন ম্যাচে ৩৬০ রান করে তিন ম্যাচের যে কোন দ্বি-পাক্ষিক সিরিজে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকে দিক থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার কুইন্টন ডি’কককে পেছনে ফেলেন আজম। ২০১২ সালের অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে পাকিস্তান যুব দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার কৃতিত্বও রয়েছে তার।

মুস্তাফিজুর রহমান (বাংলাদেশ)

Bangladesh have found a real gem in Mustafizur Rahman, quick, accurate and crafty with his off-cutters

আন্তর্জাতিক অভিষেক ম্যাচেই বিস্ময় উপহার দেওয়া মুস্তাফিজুর রহমান তিন বছরের মধ্যেই বিশ্ব ক্রিকেটের সাথে নিজেকে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে। বাংলাদেশও পেয়েছে একজন প্রতিভাবান তরুণ ক্রিকেটার। এবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেও মুস্তাফিজের দিকে তাকিয়ে থাকবে বাংলাদেশ।

২০১৫ সালে ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক ম্যাচেই পাঁচ উইকেট তুলে নেন বাঁ-হাতি এই পেসার। এরপর দ্বিতীয় ওয়ানডে তুলে নেন ছয় উইকেট। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম দুই ম্যাচে পাঁচ উইকেট পাওয়া দ্বিতীয় বোলার মুস্তাফিজ। তার আগে এই কীর্তি রয়েছে কেবল জিম্বাবুয়ের ব্রায়ান ভেটরির।

আইসিসি বলছে, ২১ বছর বয়সী এই পেসারের এখনও অনেক কিছু আছে। যদি সে চোটমুক্ত থাকে আরও পরিণত হওয়ার সময় পাবে এবং দক্ষতা দেখানোরও সময় পাবে। বর্তমান ফর্ম ও সম্ভাবনা মিলিয়ে মুস্তাফিজ অনেক বড় কিছু অর্জন করতে পারে।

কুশল মেন্ডিস (শ্রীলঙ্কা)

Kusal Mendis has shown flashes of brilliance in the 50-over format where, in 25 matches, he has scored 845 runs, averaging 36.73

২০১৫ সালে কলম্বোতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সাদা পোশাকের টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক কুশল মেন্ডিসের। এরপর টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১৭৬ রানের ইনিংস খেলার পরই আলোচনায় আসেন মেন্ডিস। টেস্টের পাশাপাশি এখন পর্যন্ত ২৫ ওয়ানডেতে ৩৬.৭৬ গড়ে নামের পাশে ৮৪৫ রান যোগ করেছেন এই লঙ্কান ব্যাটসম্যান। কুমার সাঙ্গাকারার অবসরের পর তিন নম্বরে অনেক ব্যাটসম্যানকে নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা চালিয়েছে শ্রীলঙ্কা। তাদের মধ্যে তিন নম্বরে ব্যাট করার জন্য সবচেয়ে বেশি কার্যকরী ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন মেন্ডিস।

জাসপ্রিত বুমরাহ (ভারত)

Jasprit Bumrah is considered as India's most reliable and potent death-overs specialist

ডেথ ওভারে ভারতের সবচেয়ে নির্ভযোগ্য ও কার্যকরী বোলার হিসেবে জাসপ্রিত বুমরাহকে বিবেচনা করা হয়। তার সবচেয়ে কার্যকরী অস্ত্রের নাম ইয়ার্কার। ২৩ বছর বয়সী ভারতীয় ক্রিকেটারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ২০১৬ সালে, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।

অজিদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ছয় উইকেট তুলে নিয়ে নিজের সামর্থ্যের জানান দেন এই ভারতীয়। এরপর থেকেই একের পর এক আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি। ইতিমধ্যে ভারতের জাতীয় দলে অন্যতম ভরসার প্রতীক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে নিয়েছেন বুমরাহ।

প্যাট কামিন্স (অস্ট্রেলিয়া)

Pat Cummins' best ODI figures came in December 2016, during the second ODI of the Chappell-Hadlee Trophy when he took 4 for 41

২০১১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় প্যাট কামিন্সের। অভিষেক ওয়ানডেতে প্রোটিয়াদের তিন ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে দেন এই অজি পেসার। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে চ্যাপেল-হ্যাডলি ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে ৪১ রান খরচায় চার উইকেট তুলে নেন তিনি। ওয়ানডেতে এটাই তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং।

কামিন্সের দুর্দান্ত বোলিংয়ে নিউজিল্যান্ডে বিপক্ষে ১১৬ রানের বড় জয় পায় অজিরা। তবে বেশ কয়েকবার ইনজুরিতে পড়ে মাঠের বাইরে থাকতে হয়েছে তাকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরেছেন তিনি। চলতি বছর ভারতের বিপক্ষে চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজ দিয়ে পুনরায় টেস্ট ক্রিকেটে ফিরেছেন কামিন্স। ২০১১ সালে অভিষেকের ছয় বছর পর টেস্টে ফিরেছেন এই অজি ক্রিকেটার।

স্যাম বিলিংস (ইংল্যান্ড)

Sam Billings is capable of hitting the ball a long way without sacrificing flair or orthodoxy

ইংল্যান্ডের পরিবর্তিত ব্যাটিং লাইন আপে অন্যতম সেরা তরুণ ব্যাটসম্যান স্যাম বিলিংস। যে কোনো বোলারকে বাউন্ডারিতে উড়িয়ে মারতে জুড়ি নেই এই ইংলিশ ব্যাটসম্যানের। সম্প্রতি উইকেটের পেছনে দাঁড়ানোর নতুন দায়িত্বও দেওয়া হয়েছিলো স্যাম বিলিংসকে। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে উইকেটরক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। সেখানেও দেখিয়েছেন দক্ষতা।

এখন পর্যন্ত ১১ ওয়ানডেতে ২৭.৩৩ গড়ে নামের পাশে ২৪৬ রান যোগ করেছেন বিলিংস। সময়ের সাথে সাথে নিজের ব্যাটিং আরও বেশি উন্নতি আনছেন তরুণ এই ব্যাটসম্যান। ধারণা করা হচ্ছে, ঘরের মাটিতে অনুষ্ঠিতব্য চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির এবারের আসরে ব্যাট হাতে জ্বলে উঠবেন ২৫ বছর বয়সী বিলিংস।

সূত্র: আইসিসি

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s