বাংলাদেশের চোখ তখন বড় সংগ্রহেই। উদ্বোধনী জুটি থেকেই যে ততক্ষণে ৭২ রান চলে এসেছে। কিন্তু এমন সময় ২৩ রান করে থামলেন ওপেনার তামিম ইকবাল। আর তার বিদায়েই বদলে গেল দৃশ্যপট। শুরু হয় আসা যাওয়ার মিছিল। কিন্তু এর মাঝে নিজেদের ব্যতিক্রম প্রমাণ করেছেন সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতরা।

এদের ব্যাটেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে লড়াকু সংগ্রহ পেয়েছে বাংলাদেশ। ত্রিদেশীয় সিরিজে বুধবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ব্ল্যাক ক্যাপদের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে নয় উইকেটে ২৫৭ রান তুলেছে মাশরাফিবাহিনী। ডাবলিনের ক্লনটার্ফ ক্রিকেট ক্লাব গ্রাউন্ডে এমন সংগ্রহ গড়ার পথে সামনে থেকে নেতৃত্বে দিয়েছেন সৌম্য, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহরা ও মোসাদ্দেক। এই চার ব্যাটসম্যানের মধ্যে তিনজন পেয়েছেন হাফ সেঞ্চুরির দেখা।

নিউজিল্যান্ডকে ২৫৮ রানের লক্ষ্য দেয়ার দিনে অবশ্য সাবলীল ব্যাটিং করতে পারেনি বাংলাদেশ। যদিও তামিম ইকবাল ও সৌম্যর ব্যাটে দারুণ সূচনাই মিলেছিল। উদ্বোধনী জুটিতে এই দুই ওপেনার ৭২ রান যোগ করেন। কিন্তু ২৩ রান করে তামিম বিদায় নিতেই বিপাকে পড়ে যায় বাংলাদেশ। পরের ওভারেই মাত্র এক রান করে সাজঘরে ফেরেন সাব্বির রহমান।

দ্রুত দুই উইকেট হারানোর চাপ কাটিয়ে তোলেন আরেক ওপেনার সৌম্য সরকার ও মুশফিকুর রহিম। জুটিটা বড় হলেও তামিম-সাব্বিরকে দ্রুত হারানোর চাপ কাটিয়ে তোলেন সৌম্য ও মুশফিক। ৩৮ রানের জুটি গড়ার মাঝে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের পঞ্চম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন সৌম্য সরকার।

হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করে বেশি পথ পাড়ি দেয়া হয়নি বাঁ-হাতি এই ব্যাটসম্যানের। ৬৭ বলে পাঁচ চারে ৬১ রান করে বিদায় নেন প্রায় দুই বছর পর ওয়ানডেতে হাফ সেঞ্চুরির দেখা পাওয়া সৌম্য। এরপর মাত্র ছয় রান করে ফিরে যান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও।

এমন অবস্থায় জুটি বাধেন মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। পঞ্চম উইকেটে ৪৯ রানের কার্যকরী জুটি গড়েন তারা। এসময় ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ২৪তম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিক। ৬৬ বলে চার চার ও এক ছয়ে ৫৫ রান করে জেমস নিশামের শিকারে পরিণত হন তিনি।

এরপর ভালোই ব্যাট চালিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ ও মোসাদ্দেক। তরুণ মোসাদ্দেককে সাথে ৬১ রানের জুটি গড়ার পথে ওয়ানডেতে নিজের ১৭তম হাফ সেঞ্চুরির দেখা পান মাহমুদউল্লাহ। সাজঘরে ফেরার আগে ৫৬ বলে ছয় চারে ৫১ রান করেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।

মোসাদ্দেকও দারুণ নির্ভতার প্রমাণ দিয়েছেন। ইনিংসের শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে ৪১ বলে চার চারে ৪১ রান করেন তিনি। শেষ ওভারে মেহেদী হাসান মিরাজ, অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা রান তুলতে পারেননি। শেষপর্যন্ত নয় উইকেটে ২৫৭ রানে থামে বাংলাদেশের ইনিংস। নিউজিল্যান্ড পেসার হামিশ বেনেট সর্বোচ্চ তিন উইকেট নেন।

Advertisements