বেতন কাঠামো নিয়ে বোর্ডের সাথে দ্বন্দ্ব এটা নতুন কিছু নয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটারের সাথে বোর্ডের অর্থ নিয়ে দ্বন্দ্ব লেগেই থাকে। কিছুদিন আগে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররাও বেতন বাড়ানো নিয়ে বোর্ডের কাছে আবেদন করেছিল। অন্যদিকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া নতুন চুক্তির মাধ্যমে খেলোয়াড়দের বেতন বাড়িয়েছে। কিন্তু নতুন এই বেতন কাঠামোর চুক্তি নিয়ে ভালোই দ্বন্দ্ব চলছে অস্ট্রেলিয়ার বোর্ড ও ক্রিকেটারদের মধ্যে।

 
 
কিছুদিন আগে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটারদের সাথে নতুন বেতন সংক্রান্ত চুক্তি করে। কিন্তু গত ২০ বছর মোট আয়ের যে নির্দিষ্ট অংশ ক্রিকেটাররা লভ্যাংশ হিসেবে পেতেন, সেটা এই নতুন চুক্তিতে রাখা হয় নি। যার ফলে ক্ষেপেছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারস অ্যাসোসিয়েশন। নতুন এই চুক্তিকে তারা প্রত্যাখ্যান করে নাম দিয়েছে, ‘ক্রিকেট প্রশাসকদের বিজয়, কিন্তু ক্রিকেটের ক্ষতি’ হিসেবে।
 
এদিকে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ডও লভ্যাংশ ভাগাভাগির প্রশ্নে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারস অ্যাসোসিয়েশনের এমন পদক্ষেপে পাল্টা হুমকি দিয়েছে। নতুন চুক্তিতে ক্রিকেটাররা স্বাক্ষর না করলে ক্রিকেটারদের বেতন বন্ধ করার হুমকি দিয়েছে বোর্ড।
 
গত শুক্রবার ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জেমস সাদারল্যান্ড এক বিবৃতির মাধ্যমে বলেছেন, “ক্রিকেটারস অ্যাসোসিয়েশন যদি নতুন চুক্তি স্বাক্ষরের ব্যাপারে রাজি না হয়, তাহলে বর্তমান চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তারা নতুন কোনো চুক্তির আওতাভুক্ত হবে না। আর নতুন চুক্তি না হলে ৩০ জুনের পর ক্রিকেটারদের বেতন দেওয়ার কোনো রাস্তা থাকবে না।”
 
বোর্ডের এমন একতরফা সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানানোর পরিকল্পনা চলছে ক্রিকেটারদের মাঝে। সেক্ষেত্রে চলতি বছরে বাংলাদেশ সফর ও নভেম্বরের অ্যাশেজ সিরিজ বয়কট করতে পারেন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা!
Advertisements