২ বছর পর ওয়ানডে দলনেতা সাকিব

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে স্লো ওভার রেটের কারণে এক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা পেয়েছিলেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের নিয়মিত অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।  ফলে আজ ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামতে পারবেন না তিনি।  মাশরাফির অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশ দলের নেতৃত্বের ভার তাই এসেছে সহ-অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের কাঁধে।  দীর্ঘ দুই বছর পর বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক হিসেবে মাঠে নামবেন সাকিব।

২০০৯ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত—টানা তিন বছর বাংলাদেশ ওয়ানডে

দলের অধিনায়ক ছিলেন সাকিব আল হাসান।  এ সময়ে বেশ কিছু স্মরণীয় সাফল্যও পেয়েছিল বাংলাদেশ।  এরপর সরে দাঁড়িয়েছিলেন নেতৃত্ব থেকে।  ২০১১ সালের পর সাকিব আবার বাংলাদেশের অধিনায়ক হিসেবে খেলেছিলেন ২০১৫ সালে, দুটি ম্যাচে।  একটি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ও অপরটি পাকিস্তানের বিপক্ষে।  ২০১৫ সালের এপ্রিলে পাকিস্তানের বিপক্ষে সেই ম্যাচটিতে জয়ও পেয়েছিল বাংলাদেশ।

এরপর দুই বছরের বেশি সময় পর আবার সাকিবের নেতৃত্বে মাঠে নামতে যাচ্ছে টাইগাররা।  আজ বাংলাদেশের ত্রিদেশীয় সিরিজের মিশন শুরু হবে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে।  ডাবলিনে বিকেল পৌনে ৪টায় স্বাগতিকদের মুখোমুখি হবেন সাকিব-মুশফিকরা।

টস করতে নামার সময় বাংলাদেশের অধিনায়ক হিসেবে একটা মাইলফলকও স্পর্শ করবেন সাকিব।  এটি হবে ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে তাঁর ৫০তম ম্যাচ।  সাকিবের আগে এই মাইলফলক স্পর্শ করতে পেরেছেন শুধু একজন, হাবিবুল বাশার।  ২০০৪ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত হাবিবুল বাশারের নেতৃত্বে বাংলাদেশ খেলেছিল মোট ৬৯টি ম্যাচ।

এখন পর্যন্ত ৪৯টি ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়ে সাকিব জয় পেয়েছেন ২৩টি ম্যাচে।  হেরেছেন ২৬টিতে।  আজ মাইলফলকের ম্যাচটি নিশ্চয়ই জয় দিয়েই স্মরণীয় করে রাখতে চাইবেন সাকিব।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s