আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। আর এই সিরিজকে সামনে রেখে ইতিমধ্যে ইংল্যান্ডের কন্ডিশনিং ক্যাম্প শুরু করেছে টাইগাররা।

প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সেখানে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা ছিলো মাশরাফিদের যার মধ্যে প্রথমটি অনুষ্ঠিত হয়েছে গত ১লা এপ্রিল (সোমবার)। ডিউক অব নরফোকের বিপক্ষে সেই ম্যাচটি যদিও বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছে, তবে সেই ম্যাচে ভালোই ব্যাটিং অনুশীলন হয়েছে টাইগারদের।

নরফোক একাদশের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩৪৫ রান সংগ্রহ করেছিলো মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল।

এবার নিজেদের দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে কাউন্টি ক্রিকেটের দল সাসেক্স একাদশের বিপক্ষে আজ বিকেলে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। ইতিমধ্যে এই ম্যাচে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমেছে বাংলাদেশ।

নিজেদের প্রস্তুতির সুবিধার্থে আজকের ম্যাচে সাসেক্স দলে খেলছেন দুইজন বাংলাদেশি ক্রিকেটার। ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছে মুশফিকের অধিনে খেলা টাইগাররা।
ব্যাটিং পাওয়ারপ্লেতেই ওপেনার সৌম্য সরকারের উইকেট হারালেও ইমরুল ও সাব্বিরের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। বিশেষ করে বাঁহাতি ওপেনার ইমরুল ৪৬ বলে ফিফটি তুলে নিয়ে দলের স্কোর বাড়াতে থাকেন।

অন্য প্রান্তে থাকা সাব্বির রহমানও দারুন খেলে অর্ধশত তুলে নেন। তবে ইনিংস বড় করতে পারেনি বাংলাদেশ দলের নাম্বার থ্রি ব্যাটসম্যান। ৫৩ রান করে আউট হয়েছেন তিনি।
উইকেট পতনের পরও দলের রানের চাকা সচল রাখেন ইমরুল। দারুন খেলে সেঞ্চুরির পথে এগোতে থাকেন তিনি। কিন্তু সেঞ্চুরি থেকে মাত্র আট রান দূরে থেকে স্বেচ্ছায় রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফিরে যান এই বাঁহাতি ওপেনার।

ওপেনার ইমরুল ফিরে যাওয়ার পর ৪০ রান যোগ করে দলের স্কোর দুইশ ছাড়াতে সাহায্য করেন কাপ্তান মুশফিক। ইনিংস লম্বা করতে পারেনি মুশফিক। মুশফিকের পর দ্রুত বিদায় নেন নাসির ও মোসাদ্দেক।

তবে সোহান ও মেহেদি দলের রানের চাকা সচল রাখেন। সোহান দ্রুত ২৭ রানের ইনিংস খেলে আউট হন। সানজামুলের পর তাসকিন আউট হলেও এক প্রান্ত ধরে দলের স্কোর আট উইকেটে ৩০৮ রানে পৌঁছে দেন মিরাজ।

একই সাথে দুই ছয় ও চারটি চারের সাহায্যে অর্ধশত তুলে নেন মেহেদি হাসান মিরাজ। শেষের দিকে পেসার রুবেলের সাথে জুটি গড়ে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩১৪ রান তুলতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ। মিরাজের ব্যাট থেকে আসে অপরাজিত ৬০ রানের দারুন এক ইনিংস। জয়ের জন্য ৩১৫ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নামবে সাসেক্স কাউন্টি দল।

উল্লেখ্য এই প্রস্তুতি ম্যাচটি শেষে আগামী ৭ই মে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে অংশ নিতে ইংল্যান্ড ছাড়বে মাশরাফিরা। সেখানে আরেকটি প্রস্তুতি ম্যাচে অংশ নিবে তারা। এরপর ১২ই মে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ দল (১২ ক্রিকেটার)-
আহমেদ, এস হাসান, এম হাসান, এন হোসেন, এম হোসেন, এইচ রুবেল, এস ইসলাম, কায়েস, আর সাব্বির, এম রহিম (উইকেট রক্ষক/অধিনায়ক), এস রয়, এস সরকার।

সাসেক্স দল- (১৪ ক্রিকেটার, ২ জন বাংলাদেশী)-
রবসন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, জেনার, উডল্যান্ড বারটন, বারগেস (উইকেট রক্ষক), রওলিন্স, সাকান্দে, সল্ট (অধিনায়ক), হুইটিংহাম, শফিউল,

Advertisements