যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ হলেও ক্রিকেটে আফগানিস্তানের উন্নতিটা চোখে পড়ার মতো। টেস্ট খেলুড়ে দেশগুলোর বাইরে আরেকটি আলোচিত দেশ আয়ারল্যান্ড। কিন্তু এতদিন তাদেরকে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) সহযোগী সদস্য দেশ হিসেবে। এবার আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ডকে সুসংবাদ দিতে যাচ্ছে আইসিসি!

চলতি বছরের জুন মাসে আফগানিস্তানের সঙ্গে টেস্ট স্ট্যাটাস পেতে যাচ্ছে আয়ারল্যান্ড ক্রিকেট দল। পাশাপাশি আইসিসির পূর্ণ সদস্য পদও পেতে যাচ্ছে আইরিশরা।দুবাইয়ে আইসিসির বোর্ড সভা শেষে আয়ারল্যান্ড ক্রিকেটের প্রধান রস ম্যাককলাম ফোনে ডিউট্রমকে এই খুশির সংবাদ শোনান বলে জানালেন ক্রিকেট আয়ারল্যান্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ওয়ারেন ডিউট্রম।

এ প্রসঙ্গে ডিউট্রমের ভাষ্য, ‘জুনের ২২ তারিখ আমরা আইসিসির পূর্ণ সদস্য পদ পেতে পারি। এ ছাড়াও আরো বেশ কিছু খুশির খবর রয়েছে। আমরা আগেই সবকিছু ফাঁস করতে চাইনা। যে প্রক্রিয়ায় বিষয়টি এগোচ্ছে সেটার প্রতি আমাদের সম্মান রয়েছে। টেস্ট খেলুড়ে ১০ দেশ ১২ তে উন্নীত হতে যাচ্ছে। তবে মাত্র নয়টি দল নিয়মিত লিগ পদ্ধতিতে টেস্ট খেলার সুযোগ পাবে। সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে জিম্বাবুয়ে এই লিগের অংশ হচ্ছে না। তারা আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট খেলবে। সে হিসেবে আফগানিস্তান ও আমরা শিগগিরই টেস্ট খেলুড়ে দেশ হতে যাচ্ছি।’

কাউন্টি ক্রিকেটে নিয়মিত খেলা আইরিশদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পারফরম্যান্সের গ্রাফ ঊর্ধ্বগামীই বলা চলে। ঘরোয়া ক্রিকেটেও তারা বেশ উন্নতি করেছে। এরই মাঝে আয়ারল্যান্ডের ইন্টার-প্রোভিন্সিয়াল চ্যাম্পিয়নশিপকে প্রথম শ্রেণির মর্যাদা দেওয়া হয়েছে।২০০৭ বিশকাপে পাকিস্তানের সাথে চমক দেখানো দলটি পরবর্তী সব বিশ্বকাপেই ভালো খেলেছে।

তাদের উন্নতি চোখ এড়ায়নি আইসিসিরও। ইতিমধ্যে আয়ারল্যান্ড তাদের স্টেডিয়ামগুলো ঢেলে সাজাতে যাচ্ছে। নিয়মিতভাবে আফগানিস্তানের সঙ্গে আয়ারল্যান্ডের টেস্ট ম্যাচ হতে পারে। পাশাপাশি বড় দলের বিপক্ষেও খেলার সুযোগ পেতে পারে তারা।

সবশেষ ২০০০ সালে দশম দেশ হিসেবে টেস্ট স্ট্যাটাস পায় বাংলাদেশ। এরপর কোনো দেশ আইসিসির পূর্ণ সদস্যপদ পায়নি। দীর্ঘ বিরতি শেষে সদস্য পদ বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে আইসিসি। আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ড টেস্ট স্ট্যাটাস পেলে দীর্ঘ ১৭ বছর পর কোনো দেশ আইসিসির পূর্ণ সদস্যপদ পাবে।

সূত্র: দ্যা আইরিশ টাইমস, আরটিই

Advertisements