ইংল্যান্ডের সাসেক্সে ১০ দিনের প্রস্তুতি ক্যাম্প করতে বুধবার দিবাগত রাত পৌনে একটায় উড়াল দিয়েছে ১৬ সদস্যর বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ১০ দিনের প্রস্তুতি ক্যাম্প শেষে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ এরপর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে মাঠে নামবে মাশরাফিবাহিনী।

ভিন্ন কন্ডিশনে পুরো সফরটাই চ্যালেঞ্জিং হবে বলে মনে করছেন মুশফিকু রহিম-তাসকিন আহমেদ-নাসির হোসেনরা।

এ প্রসঙ্গে সাদা পোশাকে বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিকের ভাষ্য, ‘কয়েক দিন আগে আমরা শ্রীলঙ্কায় সিরিজ খেলে এসেছি। ওখানকার ভালো পারফরম্যান্স আমাদের আত্মবিশ্বাস জোগাচ্ছে। এই দুইটা সিরিজ আমাদের কাজে আসবে।’

 

বাঁ-হাতি ওপেনার সৌম্য সরকার বলেন, ‘দলে সুযোগ যখন পাই, বরাবরই আমার চেষ্টা থাকে নিজেকে উজাড় করে দেওয়ার। হয়তো আমি সফল হই, কখনো ব্যর্থ হই। তবে এই সুযোগটা আমি কাজে লাগাতে চাই।চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি বিগ ইভেন্ট। এখানে ফোকাসটা বেশি থাকে। সুতরাং, আমার চেষ্টাটা থাকবে ভালো কিছু করার।’

 

দীর্ঘদিন পর দলে ফেরা অলরাউন্ডার নাসির হোসেন বলেন, ‘অনেক দিন পর টিমে ফিরছি। ভালো কিছু করার চেষ্টা থাকবে। এটা আমাকে অনুপ্রাণিত করছে। একাদশে সুযোগ পেলে ব্যাটিং-বোলিংয়ে নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা থাকবে।’

 

এদিকে এবারই প্রথমবার ইংল্যান্ড যাচ্ছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। নিজের লক্ষ্য জানিয়ে মিরাজ বলেন, ‘এবারই প্রথম ইংল্যান্ডে যাচ্ছি। সেখানে আমার সামর্থ্যের সেরাটা দেওয়ার লক্ষ্য। আমার প্রস্তুতিটাও ভালো হয়েছে। ওখানে ১০ দিনের যে কন্ডিশনিং ক্যাম্প, সেটা আমাদের জন্য কাজে আসবে।’

 

তবে পেসার রুবেল হোসেনের প্রথম লক্ষ্য আয়ারল্যান্ডের ত্রিদেশীয় সিরিজ। ডানহাতি এই পেসার বলেন, ‘চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে হবে ত্রিদেশীয় সিরিজ। আমার প্রথম লক্ষ্য হলো ত্রিদেশীয় সিরিজ, পরে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। যখন যেখানে সুযোগ পাব, সেখানেই আমি উজাড় করে দিব।’

আরেক পেসার তাসকিন আহমেদ বলেন, ‘আমাদের আত্মবিশ্বাস আছে। আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস, ইংল্যান্ড সফরে ভালো কিছু করা সম্ভব হবে। দলের খেলোয়াড়রা বেশ আত্মবিশ্বাসী।’

 

এমিরেটসের একটি ফ্লাইটে চড়ে লন্ডনের উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছেন মুশফিক-নাসিররা। ট্রানজিট ও সিট স্বল্পতার কারণে দুইভাগে ভাগ হয়ে লন্ডনে পৌঁছাবে বাংলাদেশ। এছাড়া ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) খেলতে ভারতে থাকায় টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও পেসার মুস্তাফিজুর রহমান এই দলের সঙ্গে যেতে পারছেন না। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী পাঁচ মে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন এদু’জন।

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজটি হবে আগামী ১২ থেকে ২৪ মে। এই সিরিজে বাংলাদেশ চারটি ম্যাচ খেলবে। স্বাগতিক দল ছাড়াও এ সিরিজের অপর দল নিউজিল্যান্ড। এরপর আগামী এক জুন থেকে ইংল্যান্ডে শুরু হবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি। তার আগে ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

ত্রিদেশীয় সিরিজের বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, সাব্বির রহমান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন, মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, নাসির হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদী হাসান মিরাজ, শুভাশীষ রায়, সানজামুল ইসলাম ও শফিউল ইসলাম।

চ্যাম্পিয়নস ট্রফির বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, সাব্বির রহমান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, সানজামুল ইসলাম ও শফিউল ইসলাম।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির স্ট্যান্ড বাই: নাসির হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, শুভাশীষ রায় ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

Advertisements