আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিকে বিদায় বলে দিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই শেষ টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলছেন বাংলাদেশের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের এই অধিনায়ক। মাশরাফি অবসর ঘোষণার দেয়ার দিন থেকেই টি-টোয়েন্টির নতুন অধিনায়ক নিয়ে জল্পনা কল্পনা শুরু হয়ে গেছে।

অনেকেরই ধারণা বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি দলের নতুন অধিনায়ক হবেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও এমন ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছেন। এটা অনেকটা ওপেন সিক্রেটের মতোই হয়ে গেছে। অবশ্য এখনও বিসিবি থেকে এ ব্যাপারে কোনো ঘোষণা আসেনি।

বিসিবির সিনিয়র সহ-সভাপতি মাহবুব আনাম বলছেন বোর্ড সভায় বসেই নতুন অধিনায়ক নির্বাচন করা হবে। আগামী বোর্ড সভাতে টি-টোয়েন্টির নতুন অধিনায়কের নাম ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। বুধবার মিরপুরে মাহবুব আনাম বলেন, ‘অধিনায়কের সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড পরবর্তী বোর্ড মিটিংয়ে করবে।’

আর নতুন অধিনায়ক নির্বাচনে মাশরাফির সাথে আলোচনায় বসবে বিসিবি। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের বিপক্ষে পূর্ণাঙ্গ সিরিজের আগে আমাদের টি-টোয়েন্টি খেলা নেই। সেটাও জুলাই-আগস্টের দিকে। আমাদের হাতে সময় রয়েছে। এ বিষয়ে আমরা অবশ্যই মাশরাফির সঙ্গে আলোচনা করব। সে যেহেতু দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছে, আমরা তার সিদ্ধান্তকেও গুরুত্বের সঙ্গে দেখব।’

মাশরাফির অবসরের পর উত্তাল হয়ে উঠেছে বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গন। সতীর্থ থেকে শুরু করে বাংলাদেশের সাবেক ক্রিকেটাররা মাশরাফির এমন হঠাৎ অবসরে রীতিমতো অবাক। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন থেকে শুরু করে প্রধান কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহের সমালোচনায় মেতে উঠেছে সাধারণ ক্রিকেট ভক্তরা।

এটাকে মাতামাতিই বলছেন মাহবুব আনাম, ‘আমরা মনে হয় একটু বেশি কথা বলছি কিংবা মাতামাতি করছি। সে এখনও বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক। আমরা তার নেতৃত্বে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলতে যাব। তার আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশিয় সিরিজ খেলতে যাব। আমার মনে হয় আমরা সেদিকে বেশি মনোযোগী থাকব।’

Advertisements