সাব্বির রহমানের সেই ইনিংসটির কথা শ্রীলঙ্কানরা ভুলতে পেরেছেন? বাংলাদেশ ভুলতে পারবে না কোনো দিন। টি-টুয়েন্টিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম জয় এনে দিয়েছে যে ইনিংস, সেই ইনিংসের কথা বাংলাদেশ ভুলে যায় কী করে! নিশ্চিত থাকতে পারেন, ভুলতে পারেনি শ্রীলঙ্কাও।

সাব্বির ৮০ রানের অসাধারণ সেই ইনিংসটি যে খেলেছিলেন টি-টুয়েন্টিতে দুই দলের সর্বশেষ সাক্ষাতে। সাব্বিরের ওই ইনিংসে চড়ে বাংলাদেশ পায় ২৩ রানের জয়। টি-টুয়েন্টিতে সেটাই হয়ে আছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের একমাত্র জয়ের কীর্তি।

২০১৬ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি। মিরপুর স্টেডিয়ামে এশিয়া কাপ টি-টুয়েন্টি ম্যাচে মুখোমুখি বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশ ২৬ রানেই হারিয়ে ফেলে ৩ উইকেট। প্রতিকূল এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে লঙ্কান বোলারদের তুলোধুনো করে সাব্বির খেলেন ৫৪ বলে ৮০ রানের আলো ঝলমলে এক ইনিংস। ১০ চারের সঙ্গে তার ইনিংসে ছিল ৩টি ছক্কাও। সাব্বিরের ওই ইনিংসে চড়ে বাংলাদেশ পায় ৭ উইকেটে ১৪৭ রানের পুঁজি। পরে বোলারদের দারুণ বোলিংয়ে শ্রীলঙ্কা ৮ উইকেট হারিয়ে করতে পারে মাত্র ১২৪ রান। বাংলাদেশ পায় টি-টুয়েন্টিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম জয়ের স্বাদ।

শ্রীলঙ্কা বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে সাব্বিরের মাত্র ৫৪ বলে ৮০ রানের বিধ্বংসী ইনিংসটি

এক বছরেরও বেশি সময় পর মঙ্গলবার আবার যখন টি-টুয়েন্টিতে মুখোমুখি হচ্ছে শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ, তার আগে দুই শিবিরেই ফিরে আসবে মিরপুরের সেই স্মৃতি। তবে মাশরাফির বাংলাদেশ দলে ছিটিয়ে দেবে আত্মবিশ্বাসের হাওয়া। অন্যদিকে স্বাগতিক লঙ্কান শিবিরে স্মৃতিটা হানা দেবে হতাশার কারণ হয়ে। যে হতাশাটা লঙ্কানদের খুব ভালো করেই মনে করিয়ে দেবে সাব্বিরকে। বাংলাদেশকে দারুণ এক জয় এনে দেওয়ার কারণেই শুধু নয়, সাব্বিরের ওই ইনিংসটার মাহাত্ম্য বেড়ে যাচ্ছে আরও একটা কারণেও। দুই দলের টি-টুয়েন্টি দ্বৈরথে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংসও হয়ে আছে সাব্বিরের ৮০। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬৪ রানের দুটি ইনিংসই শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যান কুশল পেরেরার। তৃতীয় সর্বোচ্চ ৫৮ রানের ইনিংসটির মালিক বাংলাদেশের এনামুল হক বিজয়।

এশিয়া কাপের ওই ম্যাচ ছাড়া শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আর একটিই টি-টুয়েন্টি খেলেছেন সাব্বির। ২০১৪ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামের সেই ম্যাচ দিয়েই টি-টুয়েন্টি অভিষেক হয়েছিল সাব্বিরের। ৬ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে খুব বেশি সুবিধা করতে পারেননি। ৩৬ বল খেলে করেছিলেন ২৬ রান। তবে বাংলাদেশ মাত্র ১২০ রানে গুটিয়ে যাওয়ার পথে সাব্বিরের ২৬ রানই ছিল ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংস। ১২১ রানের মামলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শ্রীলঙ্কাও জিতেছিল কষ্ট করে, মাত্র ৩ উইকেটে।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সাব্বির দুই ম্যাচে করেছেন ১০৬ রান। দুই দলের দ্বৈরথে যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান। সর্বোচ্চ ১৪৯ রান করেছেন কুশল পেরেরা। সে যাই হোক, সর্বশেষ সেই ম্যাচের স্মৃতি সাব্বিরকেও নিশ্চয় অনুপ্রাণিত করছে। সাব্বির পারবেন, ব্যাট হাতে জ্বলে উঠে শ্রীলঙ্কানদের আরেকবার পরাজয়ের হতাশা উপহার দিতে?

Advertisements