টেস্ট, ওয়ানডের অধ্যায় শেষ। এবার টি-টোয়েন্টির দ্বৈরথ। প্রস্তুত মঞ্চ, প্রস্তুত দুই প্রতিযোগী দল বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা। অপেক্ষা এখন ব্যাট-বলের জমজমাট লড়াইয়ের। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭.৩০টায় কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে শুরু হবে ম্যাচটি।

মাঠে নামার আগে দুই দলের কিছু তারকা খেলোয়াড়দের নিয়ে শুরু হয়ে গেছে নানা হিসেব-নিকেশ। বিশেষ করে নজরে আছেন টাইগার সেনসেশন মোস্তাফিজুর রহমান আর লঙ্কান পেস তারকা লাসিথ মালিঙ্গা।

টেস্ট, ওয়ানডে সিরিজে মালিঙ্গার দেখা পায়নি ভক্তরা। কিন্তু আজ ঠিকই ২২ গজে পা পড়বে এই লঙ্কান বোলারের। অপরদিকে টেস্ট, ওয়ানডেতে বল হাতে খানিকটা খরুচে ছিলেন মোস্তাফিজ। তবুও তাঁর ‘ফেভারিট’ ফরমেট টি-টোয়েন্টি বলে ফের লাইমলাইটে নাম উঠল ‘ফিজে’র।

তুলনা, সমীকরণ যা-ই বলি না কেনো? দুই প্রান্তের দুই পেস সারথিকে নিয়ে ঘরে-বাইরে আলোচনা কম হচ্ছে না। দীর্ঘ দিন ইনজুরির সঙ্গে লড়াই করে ফেরা মোস্তাফিজ টি-টোয়েন্টিতে কেমন করবে? নাকি কলম্বোতে বল হাতে মোস্তাফিজকে আড়াল করে সব আলো নিজে করে নেবেন ‘গতির ত্রাতা’ মালিঙ্গা।

তাইতো লড়াইটা মোস্তাফিজ বনাম মালিঙ্গার মধ্যেও। অবশ্য মালিঙ্গার চেয়ে মোস্তাফিজের টি-টোয়েন্টি অভিজ্ঞতা একেবারে নগণ্য। ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি দিয়েই জাতীয় দলে নাম লেখান মোস্তাফিজ। অভিষেক ম্যাচ বল হাতে দারুণ পারফর্ম করেন তিন। ৪ ওভার বল করে ২০ রানে নেন ২টি উইকেট।

সে থেকে দেশের হয়ে ১৫টি টি-টোয়েন্টি খেলা হয়েছে মোস্তাফিজের। উইকেট সংখ্যা ২৩টি। সর্বোচ্চ শিকার ২২ রানে ৫ উইকেট। ইকোনোমিক রেট ৬.০৩।

এদিকে এখন পর্যন্ত ৬৫ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন মালিঙ্গা। উইকেট ঝুলিতে পুরেছেন ৮৪টি। সেরা বোলিং ৩১ রানে ৫ উইকেট। ইকোনোমিক রেট ৭.২৯। অভিষেক হয়েছে ২০০৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। অভিষেক ম্যাচে ৩ ওভার বল করে ২৫ রান দিয়ে পাননি কোনো উইকেট।

Advertisements