টেনিস, ফুটবল, হকি, রাগবি সবই আছে বিশ্বের সববৃহৎ ক্রীড়া মহাযজ্ঞ অলিম্পিকে। আছে কত শত খেলা। শুধু নেই ক্রিকেট। ১৯০০ সালে অলিম্পিকের আসরে সর্বশেষ অন্তর্ভুক্তি ছিল ক্রিকেটের। এরপর বিশ্বের সবচেয়ে ঐতিহ্যবাহী এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ফিরে আসেনি ক্রিকেট।

তবে এবার অলিম্পিকে ক্রিকেট ফেরাতে উঠে পড়ে লেগেছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। আগামী ২০২৪ সালের অলিম্পিক আসরে ক্রিকেটকে অন্তুর্ভুক্তির আবেদন করার ইঙ্গিত দিয়েছে আইসিসি প্রধান নির্বাহী ডেভিড রিচার্ডসন। তার মতে, বিশ্বব্যাপী খেলাটি ছড়িয়ে দেওয়ার এটাই সঠিক সময়।

এ প্রসঙ্গে রিচার্ডসন বলেন, ‘অামি মনে করি বেশিরভাগ সদস্যই (আইসিসি) ভাবছে, এটাই সঠিক সময় এবং ক্রিকেটকে বিশ্বব্যাপী তুলে ধরা ও বিস্তৃতির পাশাপাশি নেতিবাচক ধারণা মুছে ফেলার পরিপ্রেক্ষিতে খেলাটির সামগ্রিক সুবিধায় আমরা চূড়ান্ত পর্যায়ে এসেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের জুলাইয়ের মধ্যেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে যাতে আমরা সেপ্টেম্বরের মধ্যেই আবেদন করতে পারি, যেহেতু তখন আর্ন্তজাতিক অলিম্পিক কমিটি ২০২৪ এর অলিম্পিকের জন্য নতুন ক্রীড়া সংযোজনের চিন্তাভাবনা করে থাকে।’

ইতিমধ্যে খরচের কথা চিন্তা করে ১১০০০ এর বেশি ক্রীড়াবিদ অলিম্পিকে অংশগ্রহণ করতে পারবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইওসি। সেক্ষেত্রে ক্রিকেট অলিম্পিকে অন্তর্ভুক্ত হলে দল সংখ্যা ছয় থেকে আটের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে বলে জানান রিচার্ডসন।

এ প্রসঙ্গে আইসিসির প্রধান এই নির্বাহী বলেন, ‘তারা বলেননি যে একটি খেলা সংযুক্ত করার জন্য অন্য কোনো খেলাকে বাদ পড়তে হবে, কিন্তু যখন তারা কোনো নতুন খেলা সংযুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিবেন তখন তাদের ক্রীড়াবিদের সংখ্যা মাথায় রাখতে হবে। সুতরাং ক্রিকেট যেহেতু দলীয় খেলা, হয়ত মাত্র ৬ থেকে ৮ টি দলের অংশগ্রহণের সুবিধা থাকবে।’

২০২৪ সালের অলিম্পিকের স্বাগতিক দেশ হবে প্যারিস কিংবা লস এ্যাঞ্জেলস। আগামী সেপ্টেম্বরের সভায় আয়োজক শহর চূড়ান্ত করবে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি। এছাড়া ওই সভায় নতুন খেলা অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি বিবেচনায় থাকবে। ২০২০ টোকিও অলিম্পিকে ফিরছে বেসবল ও সফটবল।

সূত্র: বিবিসি

Advertisements