ঘরের মাঠের কোনো ওয়ানডে সিরিজে শেষ কবে জয়হীন ছিলো শ্রীলঙ্কা? এটা হয়তো লঙ্কানরাই ভুলে গেছে। অস্বাভাবিক নয় ভুলে যাওয়াটা। পাঁচ-দশ বছর নয়, ৩১ বছর আগে ঘরের মাঠে কোনো ওয়ানডে সিরিজে জয়হীন ছিলো শ্রীলঙ্কা। ১৯৮৬ সালের মার্চে চার ম্যাচের সিরিজে পাকিস্তানের বিপক্ষে একটি ম্যাচও জিততে পারেনি শ্রীলঙ্কা।

এরপর অবশ্য রেকর্ড বদলে নিয়েছে অর্জুনা রানাতুঙ্গা-সনাৎ জয়সুরিয়াদের দেশ। পাকিস্তানের বিপক্ষে ওই সিরিজের পর ঘরের মাঠে লঙ্কানরাই ছড়ি ঘুরিয়েছে সব সময়। গত ৩১ বছরে ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজে অন্তত একটি ম্যাচ হলেও জিতেছে তারা। কিন্তু ৩১ বছর এসে নিজেদের এতদিনের রেকর্ড নিয়ে হুমকির মুখে পড়ে গেছে স্বাগতিকরা।

বাংলাদেশ বাধায় ঘরের মাঠেই জয়হীন থাকার শঙ্কায় লঙ্কা শিবির। আর প্রথমবারের মতো লঙ্কানদের বিপক্ষে কোনো সিরিজ জয়ের স্বপ্নে বিভোর বাংলাদেশ দল। প্রথম ম্যাচে ৯০ রানের দাপুটে জয় পাওয়ায় এক এপ্রিল কলম্বোর সিংহলিস স্পোর্টস ক্লাব গ্রাউন্ডে সিরিজ জয়ের উদযাপন করার অপেক্ষায় মাশরাফিবাহিনী।

শনিবারের ম্যাচের আগে বাংলাদেশকেই এগিয়ে রাখছেন সবাই। কারণ দ্বিতীয় ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ায় সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ হারলেও সিরিজ ড্র হবে। কিন্তু শ্রীলঙ্কার সিরিজ বাঁচানোর মিশন। হারলেই সিরিজ খোয়াতে হবে তাদের। সেদিক থেকে চাপের পাহাড় মাথায় নিয়েই মাঠে নামতে হবে স্বাগতিকদের।

বাংলাদেশের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও আবার আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলার হুমকি দিয়ে রেখেছেন। বলেছেন, ‘সতর্ক থেকে খেলা খুব কঠিন। কারণ সতর্ক থেকে খেললে আপনি সেরাটা খেলতে পারবেন না। রক্ষণাত্মক খেলতে হবে নয়তো আক্রণাত্মক থাকতে হবে। রক্ষণাত্মক থাকলে আপনি ক্রিকেট ম্যাচ জিততে পারবেন না।’

আগের পরিকল্পনা ঠিক রেখে শেষ ওয়ানডে খেলতে মাঠে নামতে চান মাশরাফি, ‘টেস্ট-ওয়ানডে মিলিয়ে আমাদের দল এখানে টানা দুই ম্যাচ জিতেছে। যে পরিকল্পনায় আমরা খেলেছি, সেই পরিকল্পনায় খেলাটা খুব জরুরী। আমি সব সময়ই চাইব আক্রমণাত্মক ক্রিকেটটাই যেন খেলতে পারি আমরা।’

বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহে তো আগেই সিরিজ জয়ের ব্যাপারে জানিয়ে রেখেছেন, ‘সিরিজ জয়ের ব্যাপারে আমরা আত্মবিশ্বাসী। দল হিসেবে সেরাটা খেলেই প্রথম ম্যাচ জিতেছি আমরা। ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কা সবসময়ই দারুণ শক্তিশালী দল। তবে আমি মনে করি ওদের বিপক্ষে আমরা ভালো খেলবো। প্রথম ম্যাচ জিতে এগিয়ে থেকেও আমরা সিরিজটি হারতে পারি না।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে শনিবারের ম্যাচটি হারলে ১৯৮৬ সালের পর প্রথমবারের মতো ঘরের মাঠের কোনো ওয়ানডে সিরিজে জয়হীন থাকবে শ্রীলঙ্কা। ১৯৮৬ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে চার ম্যাচের সেই সিরিজে দুটি ম্যাচ হেরেছিলো শ্রীলঙ্কা। বাকি দুটি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছিলো।

Advertisements