দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচটি দিয়েই সিরিজ নির্ধারণ হয়ে যেতে পারতো। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথমবারের মতো সিরিজ জয়ের উৎসব করতে পারতো বাংলাদেশ। কিন্তু বৃষ্টির হানায় সেটা হয়নি। তৃতীয় ম্যাচটি হয়ে উঠেছে অঘোষিত ফাইনাল। বাংলাদেশ সিরিজ জয়ের লক্ষ্যে মাঠে নামলেও স্বাগতিকরা মাঠে নামবে সিরিজ বাঁচাতে।

এমন সমীকরণ নিয়ে এক এপ্রিল কলম্বোর সিংহলিস স্পোর্টস ক্লাব গ্রাউন্ডে মুখোমুখি হবে দুই দল। এমন ম্যাচে বাংলাদেশকেই এগিয়ে রাখছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ডেপেলপমেন্ট ম্যানেজার নাজমুল আবেদীন ফাহিম। এই ম্যাচে শ্রীলঙ্কাই বেশি চাপে থাকবে বলে মনে করেন তিনি।

টস জয় একটা ব্যাপার হয়ে দাঁড়াবে। তবে সেটা শ্রীলঙ্কার জন্যই বেশি চাপ তৈরি করবে জানিয়ে নাজমুল আবেদীন বলেন, ‘টস জয় বাংলাদেশের চেয়ে শ্রীলঙ্কার জন্য জরুরী। টস জিতলেও চাপে থাকবে তারাই। ওরা জানে ৩০০ রানের একটি লক্ষ্য যদি ওরা বাংলাদেশকে দিতে না পারে তাহলে জয় পাওয়া কঠিন হয়ে যাবে। এই চাপে থেকে ওরা ব্যাটিংয়ে নামলেও ৩০০ রানের একটি তাড়া কিন্তু ওদের দলে থাকবেই।’

টসে জিতলেও বাংলাদেশের কোনো চাপ থাকবে না বলেই বিশ্বাস তার, ‘বাংলাদেশ টস জিতলে এই চাপটি নেয়া লাগবে না। আর বাংলাদেশ যদি আগে ব্যাটিং করে ২৮০ রানও করতে পারে তাহলে তারা জানে এটা ডিফেন্ড করতে পারবে। ফলে সে চাপটা ওদের থাকবে না।’

এক এপ্রিলের ম্যাচে বাংলাদেশ ফেবারিট হয়ে মাঠে নামবে জানিয়ে নাজমুল আবেদীন বলেন, ‘ওদের পরিকল্পনা হয়তো এটাই থাকবে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩০০ রান ও তার বেশি করা। এতে করে ওদের জেতার একটি সুযোগ তৈরী হবে। আমি মনে করছি ভালো একটি মানসিক অবস্থা নিয়েই আমাদের দল তৃতীয় ম্যাচ খেলবে। ফেবারিট হয়ে মাঠে নেমেই সিরিজ জিতবো।’

বাংলাদেশে এমনও ক্রিকেটার আছেন যারা একাই ম্যাচ বের করে আনতে পারেন, এমনই বিশ্বাস তার, ‘মিরাজ, সাকিব, মাশরাফি, মুস্তাফিজ কিংবা তাসকিন, প্রত্যেকেই কিন্তু যে কোনো একটা দিন নিজেই ম্যাচ উইনিং বোলার হয়ে যেতে পারে। আর আমাদের যে ৮ জন ব্যাটসম্যান আছে তাদের মধ্যে ৬/৭ জনের ক্ষমতা আছে একাই ম্যাচ বের করে আনার। আমি বলবো এটা শুধু শ্রীলঙ্কার জন্য নয়, পৃথিবীর যে কোনো দলের জন্য মারাত্মক একটা প্রতিপক্ষ।’

Advertisements