শনিবার ডাম্বুলার রানগিরি আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে তামিম ইকবালের ১২৭, সাকিব আল হাসানের ৭২ ও সাব্বির রহমানের ৫৪ রানে ভর করে শ্রীলঙ্কাকে ৩২৫ রানের বড় লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় বাংলাদেশ। রানের পাহাড় তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশি বোলারদের দাপুটে বোলিংয়ে ২৩৪ রানেই গুটিয়ে যায় লঙ্কানরা। ফলে ৯০ রানের বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে মাশরাফিবাহিনী।

এটা ছিল সীমিত ওভারে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফির ২৪তম জয়। এর আগে অধিনায়ক হিসেবে সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে বাংলাদেশ জয় পেয়েছিল ২৩টি ম্যাচে। তবে বাঁ-হাতি এই অলরাউন্ডার বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন ৪৯ ম্যাচে। যেখানে জয়ের সংখ্যায় অধিনায়ক মাশরাফি তাকে ছাড়িয়ে গেলেন মাত্র ৩৮ ম্যাচেই।

আবেদন জানাচ্ছেন সীমিত ওভারে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি। ছবি: সংগৃহীত

৬৯ ওয়ানডেতে ২৯টি জয় নিয়ে বাংলাদেশের সফলতম ওয়ানডে অধিনায়ক হাবিবুল বাশার। এছাড়া মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বে ৩৭ ম্যাচে বাংলাদেশ জয় পেয়েছে ১১টি। ৩৮ ম্যাচে ২৪ জয় তুলে নিয়ে মাশরাফি এখন বাংলাদেশের দ্বিতীয় সফলতম ওয়ানডে অধিনায়ক।

তবে একটি জায়গায় অধিনায়ক মাশরাফি আর সবাইকে ছাড়িয়ে। সাফল্যের হারের দিক থেকে ৩৩ বছর বয়সী এই অধিনায়কের ধারে কাছে কেউ নেই। মাশরাফির সাফল্যের হার ৬৩.১৫ শতাংশ। ৪৬.৯৩ শতাংশ সাফল্য নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব।

Advertisements