.

বোল্ড হওয়ার পরও রিভিউ নিয়েছেন সৌম্য। ছবি: এএফপিবোল্ড হওয়ার পরও রিভিউ নিয়েছেন সৌম্য। আশার সলতে জ্বালিয়ে রেখে চতুর্থ দিন শেষ করেছিলেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল-সৌম্য সরকার। সেই আশায় যে গুঁড়েবালি, ইঙ্গিত মিলল আজ শেষ দিনের দ্বিতীয় বলেই। আসেলা গুনারত্নের বলে সৌম্য বোল্ড (৫৩)! বাংলাদেশের বাঁহাতি ওপেনারের যেন কিছুতেই বিশ্বাস হচ্ছিল না ব্যাপারটা!একটি বারও পেছনে না দেখে বিস্ময়করভাবে রিভিউ নিতে চাইলেন সৌম্য। আম্পায়ার অবশ্য দ্রুতই তাঁকে জানিয়ে দিলেন, পরিষ্কার বোল্ড; এখানে রিভিউ নেওয়ার কিছু নেই। বোল্ড হলে ব্যাটসম্যানের বাঁচার একটাই সুযোগ থাকে। বোলারের পা বাইরে পড়ে নো হয়। এখন আর সেটি রিভিউ নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। কোনো ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পর তৃতীয় আম্পায়ার নিজে থেকে তখনই দেখে নেন বোলারের পা ঠিক ছিল কি না। তাই বোল্ড হওয়ার পর রিভিউ চাওয়া এখন বিস্ময়কর সিদ্ধান্ত।
বোল্ড হয়েছেন, বেল উৎপাটিত হওয়ার শব্দও নিশ্চয়ই শুনেছেন। তবুও কেন সৌম্য রিভিউ নিতে চাইলেন? ম্যাচ-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে মুশফিকুর রহিম বললেন, ‘সৌম্য আসলে বুঝতে পারেনি বোল্ড হয়ে গেছে। হয়তো ভেবেছিল ক্যাচ হয়েছে। আর ব্যাটেই যখন লাগেনি তাহলে আউট কেন? আম্পায়াররা অবশ্য জানিয়ে দিয়েছে, সে পরিষ্কার বোল্ড!’
মুমিনুল হক বোল্ড হননি। দিলরুয়ান পেরেরার মিডল স্টাম্পে পিচ করা বলটা লাইন মিস করে এলবিডব্লু হয়েছেন বাঁহাতি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। রিভিউ নেবেন কি না এ নিয়ে মুমিনুল তামিমের সঙ্গে খানিকক্ষণ আলোচনা করলেন। তামিম তাঁকে মানা করলেও রিভিউ নিলেন। মজাটা হচ্ছে, রিভিউ নিয়েও হাঁটা ধরলেন ড্রেসিংরুমের দিকে!
কেন মুমিনুল আউট নিয়ে দ্বিধাগ্রস্ত ছিলেন, সেটি বললেন মুশফিক, ‘ওরা দুজন (মুমিনুল-তামিম) আলোচনা করে ঠিক করেছে। ভেবেছে বলটা স্টাম্পের ওপরে বা পিচ আউটসাইড লেগ হতে পারে।’
পঞ্চম দিনে ছন্নছাড়া বাংলাদেশের প্রতীক হয়ে থাকল রিভিউ দুটিও!

Advertisements