২০১৩ সালে এই গলেই শ্রীলঙ্কার ৫৭০ রানের জবাবে ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে নিজেদের টেস্ট ইতিহাসের দলীয় সর্বোচ্চ ৬৩৮ রান করেছিল বাংলাদেশ। এবার দীর্ঘ দিন পর আবারো গল টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে এমন স্বপ্ন দেখছেন টাইগারদের হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহ।

গল ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার ৪৯৪ রানের জবাবে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে সফরকারী বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটের বিনিময়ে ১৩৩ রান। ম্যাচের দ্বিতীয় দিন শেষে কোচ নিজেই আসেন সংবাদ-সম্মেলনে। জানিয়েছেন নিজেদের লক্ষ্যের কথাও।

হাথুরুসিংহের মতে টাইগারদের সামর্থ্য আছে পাঁচশ রান করার। আর সম্ভব হলে আরও বেশি রান করার চেষ্টা করবেন বলেও জানান তিনি। হাথুরু বলেন,‘আমি তো চাইবো যদি সম্ভব হয় ৬০০ রান। আমরা প্রথমে চাইবো ওদের রানের কাছাকাছি যেতে। সম্ভব হলে তার চেয়ে বেশি করতে। আমার মনে হয়, এখানে ৫০০ রান করার সামর্থ্য আমাদের রয়েছে। ’

ম্যাচ শুরুর আগে শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক রঙ্গনা হেরাথ আশঙ্কা করেছিলেন শেষের দিকে স্পিনাররা সহায়তা পাওয়ায় প্রথম ইনিংস খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে। তার সাথে সুর মিলিয়েছেন টাইগার কোচ হাথুরুসিংহেও।

‘আমরা যত রান করি, দিন শেষে সেটা খুব কাজে লাগবে। পঞ্চম দিনে ম্যাচ জিততে বা ড্র করতে আমাদের খুব সাহায্য করবে তৃতীয় দিনের রান। ’

দ্বিতীয় দিনে নিজেদের প্রথম ইনিংসে খেলতে নেমে সৌম্য সরকারের সাথে ১১৮ রানের এক দুর্দান্ত উদ্বোধনী জুটি গড়েছিলেন তামিম ইকবাল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অদ্ভুতভাবে রান আউটের শিকার হয়ে সম্ভাবনার মৃত্যু ঘটিয়েছেন যা ইতিমধ্যে জেনে গেছেন অনেকেই।

তামিমের পর দিনের শেষ ভাগে এসে আউট হয়ে ফিরে গেছেন মমিনুল হকও। তবে আশার কথা হলো ক্রিজে ১৩৩ বলে ৬৬ রানে এখনও অপরাজিত আছেন ওপেনার সৌম্য সরকার। পুরোদস্তুর টেস্ট মেজাজে খেলে যাচ্ছেন তিনি।

আর সৌম্যর এই দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন কোচ হাথুরু। তবে পাশাপাশি সংবাদ সম্মেলনে সৌম্যসহ অন্যান্য টাইগার ব্যাটসম্যানদের লঙ্কান স্পিনারদের সম্পর্কে সাবধান করতে ভোলেননি তিনি।

উইকেট এখন আস্তে আস্তে স্পিন বান্ধব হয়ে পড়ছে উল্লেখ করে টাইগারদের লঙ্কান কোচ বলেন, ‘ওদের স্পিনাররা ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। ওরা রান রেট নামিয়ে এনেছে, এখানে এই কাজটা ওরা খুব ভালো করে। উইকেট মন্থর হয়ে পড়ছে। একটু স্পিন বান্ধব হয়ে যাচ্ছে। আমাদের সামনে এটাই চ্যালেঞ্জ। ’

Advertisements