ষষ্ঠ ওভারে বল করতে এসেই আঘাত হানেন পেসার শুভাশিষ রায়। নিজের প্রথম ওভারেই বোল্ড করেন ওপেনার উপল থারাঙ্গাকে। পরের বলেই উইকেট রক্ষক লিটন দাসকে ক্যাচ দেন কুশল মেন্ডিস। লিটন দারুভাবে তালুবন্দী করলে টানা দুই বলে দুই উইকেটের উল্লাসে মাতে বাংলাদেশ। কিন্তু এরপর দেখা যায় সেটি ছিল নো বল। বেঁচে যান কুশল। জীবন পেয়ে শ্রীলঙ্কাকে চালনের আসনে নিয়ে গিয়েছেন তিনিই।

নো বলের কারণে জীবন পাওয়া কুশল প্রথম দিন শেষে অপরাজিত আছেন ১৬২ রান করে। তার ব্যাটিংয়েই প্রথম দিনে আধিপত্য বিস্তার করেছে স্বাগতিকরা। সেই নো বল নিয়ে আক্ষেপ করেছেন মেহেদি হাসান মিরাজও।

মিরাজ বলেন, “কুশল মেন্ডিস খেলাটা খুব ভালোভাবে হ্যান্ডেল করেছে। ও যদি আউট হয়ে যেতো তাহলে খেলাটা অন্যরকম হয়ে যেতো।”

দ্বিতীয় দিন সকালেই কুশল মেন্ডিস ও নিরোশান ডিকওয়েলাকে ফেরাতে চায় বাংলাদেশ। মিরাজ বলেন, “ওদের চার ব্যাটসম্যান বিদায় নিয়েছে। এখন আর দুই ব্যাটসম্যান রয়েছে। মেন্ডিস আর ডিকওয়েলাকে কাল ফেরাতে পারলে লোয়ার অর্ডার চলে আসবে। সকালেই তাদের আউট করতে চাই।”

গল টেস্টে প্রথম দিন শেষে ৪ উইকেটে ৩২১ রান করেছে শ্রীলঙ্কা। ১৬৬ রান করে অপরাজিত আছেন কুশল মেন্ডিস। কুশলের সাথে দ্বিতীয় দিন শুরু করবেন ১৪ রান করে অপরাজিত থাকা ডিকওয়েলা। গুনারাত্নের ব্যাট থেকে আসে ৮৫ রান। বাংলাদেশের শুভাশিষ, মিরাজ, মুস্তাফিজুর ও তাসকিন একটি করে উইকেট শিকার করেছেন।

Advertisements