বাংলাদেশ দলের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল সম্বন্ধে পাঁচ শব্দে যদি একটি বাক্য বলতে বলা হয় আপনি কী বলবেন? কী ভেবে পাচ্ছেন না, তবে এভাবেই শুরু করুন- বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সেরা ব্যাটসম্যান।

কেননা বাংলাদেশের একমাত্র ক্রিকেটার দেশের হয়ে ব্যাট হাতে প্রায় সকল রেকর্ড নিজের নামের পাশে যোগ করেছেন তামিম ইকবাল। বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে (৩ হাজার ৪৭০ রান), ওয়ানডে (৫ হাজার ১২০ রান) এমনকি টি-টোয়েন্টিতে (১ হাজার ২০২ রান) সর্বাধিক রানের কারিগর তিনি। ফলে এককভাবে তিন ফরম্যাটে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তামিম ইকবাল।

পাশাপাশি ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটে সর্বোচ্চ ১৬টি (টেস্টে ৮টি, ওয়ানডেতে ৭টি ও ১টি টি-টোয়েন্টিতে) সেঞ্চুরির রেকর্ড তার-ই দখলে। বলাবাহুল্য টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে একমাত্র সেঞ্চুরি করার সৌভাগ্য হয়েছে শুধু তারই। পাশাপাশি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে (৫ হাজার ৭৮০) রান করেছেন দেশসেরা ব্যাটসম্যান। এমনকি লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে প্রায় সাত হাজার (৬ হাজার ৯৪৮) রানের মাইলফলকের দ্বারপ্রান্তেও দাঁড়িয়ে তামিম ইকবাল। আর মাত্র ৫২ রান করতে পারলে লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারে ৭ হাজার রান করার গৌরব অর্জন করবেন তামিম।

তবে শ্রীলঙ্কা সফরে তামিম ইকবাল দাঁড়িয়ে অনন্য মাইলফলকের সামনে। তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটে প্রথম কোনো বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে ১০ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করতে যাচ্ছেন তিনি। বর্তমানে তামিম ইকবালের তিন ফরম্যাটের রান সংখ্যা ৯ হাজার ৭৯২। শ্রীলঙ্কা সিরিজে তামিম মোট ৭ ম্যাচে ২০৮ রান যোগ করতে পারলেই প্রথম টাইগার ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটে ১০ হাজার রান করার গৌরব অর্জন করবেন। তামিম ইকবাল এই অনন্য মাইলফলক এই সফরেই স্পর্শ করবেন এটা বলার অপেক্ষা রাখে না। কেননা, শ্রীলঙ্কা বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশের বিপক্ষে দু’দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাট হাতে তাণ্ডব চালিয়েছেন তামিম। সফরকারী বাংলাদেশ দলের পক্ষে ১৮২ বলে ৯টি চার ও ৭টি ছক্কায় সর্বোচ্চ অপরাজিত ১৩৬ রান করেন।

এদিকে আগামীকাল গল টেস্ট দিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা দ্বিপাক্ষিক সিরিজ। যেখানে স্বাগতিকদের বিপক্ষে দুটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে এবং দুইটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ দল। তামিমের সঙ্গে তার ভক্তদেরও চাওয়া থাকবে এই সিরিজেই যেন তিনি ১০ হাজার রান করার গৌরব অর্জন করেন।

Advertisements