পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) ফাইনাল খেলতে শনিবার দুপুরে ঢাকা ছেড়েছেন জাতীয় দলে ব্র্যাত্য হয়ে পড়া উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান এনামুল হক বিজয়। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠেয় ওই ফাইনালে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটসের হয়ে খেলবেন তিনি।

এবারই প্রথম পাকিস্তানে ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তাই ফাইনাল উপলক্ষে লাহোরে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুলিশ ছাড়াও শহরে সেনাবাহিনী টহল দিচ্ছে। ফাইনাল শেষ না হওয়া পর্যন্ত সব মার্কেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা শঙ্কা থাকা সত্ত্বেও এনামুল হক বিজয়সহ ১৬ জন ক্রিকেটার ফাইনাল খেলতে লাহোর গিয়েছেন।

দেশ ছাড়ার আগে এনামুল হক বিজয় নিরাপত্তা নিয়ে বলেন, ‘নিরাপত্তার বিষয়ে পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়ার পরই পাকিস্তানে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আশা করি কোনো সমস্যা হবে না সেখানে।’

ফাইনালে ভালো কিছু করার ব্যাপারে খুবই আত্মবিশ্বাসী বিজয়। তিনি বলেন, ‘সবাই দোয়া করবেন। সেখানে ভালো কিছু করতেই যাচ্ছি। ভালো করতে পারলে আমার জন্যই দারুণ হবে। লক্ষ্য আমার তেমনই।’

এর আগে অনুমতির (অনাপত্তিপত্র) জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) দারস্থ হন তিনি। এনামুলের অতি আগ্রহেই তাকে ফাইনাল খেলতে অনাপত্তিপত্র দিয়েছে বিসিবি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ড্যারেন স্যামি, ইংল্যান্ডের ক্রিস জর্ডান ফাইনাল খেলতে যাচ্ছেন পাকিস্তানে। বিসিবিও তাই আপত্তি জানায়নি. ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান জানিয়েছেন, এনামুলের ইচ্ছাটাকেই বেশি প্রাধান্য দিয়েছেন তারা, ‘বিজয় খুবই আগ্রহী ফাইনাল খেলতে। আমরা ওর ইচ্ছাকেই বেশি প্রাধান্য দিয়েছি। নিরাপত্তার ব্যাপারটি নিয়ে সে নিজে নিশ্চিত, নিজ দায়িত্বেই যেতে চাইছে। আমরা তাই অনুমতি দিয়েছি।’

Advertisements