মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে গত আট জানুয়ারি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নিজের বলে কোরি অ্যান্ডারসনের শট ফেরাতে গিয়ে ডানহাতের আঙুলে আঘাত পান মাশরাফি বিন মুর্তজা। পরবর্তীতে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানা যায়, তার আঙুলে চিড় ধরা পড়েছে। ফলে, পাঁচ-ছয় সপ্তাহ মাথের বাইরে থাকতে হবে বাংলাদেশের সীমিত ওভারের এই অধিনায়ককে।

এরই মধ্যে ছয় সপ্তাহ পেরিয়ে গেছে। মাশরাফির আঙুলের চোট উন্নতির পথে। কিন্তু উন্নতিটা ধীর গতিতে হওয়ায় আরও একটু সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে ৩৩ বছর বয়সী ডানহাতি এই পেসারকে। রুটিন ওয়ার্ক হিসেবে শনিবার দুপুরে মাশরাফির আঙুলে স্ক্যান করা হয়েছে। সেখানেও উন্নতির ছাপ বিদ্যমান। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) চিকিৎসক দেবাশিষ চৌধুরী জানালেন আগামী মাসের শুরুতেই বল হাতে দেখা যাবে মাশরাফিকে।

এ প্রসঙ্গে বিসিবির অভিজ্ঞ এই চিকিৎসক বলেন, ‘এটা একটা রুটিন স্ক্যান। এরই মধ্যে প্রায় ছয় সপ্তাহ শেষ হয়ে গেছে। তবে তার আঙুল উন্নতির দিকে। সাধারণত ৬-৭ সপ্তাহের মধ্যে ঠিক হয়। কিন্তু এখানে হয়তো আট সপ্তাহের মতো লেগে যাবে। তবে শ্রীলঙ্কা সিরিজে এটা কোনও প্রভাব ফেলবে না।’

আঙুলে আঘাত পাওয়ার পর মাঠেই প্রাথমিক চিকিৎসা নিচ্ছেন মাশরাফি। ছবি: সংগৃহীত

আগামী মার্চে বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কা সফর। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ দিয়ে শুরু হবে এই সফর। এরপর ২৫ মার্চ থেকে শুরু হবে ওয়ানডে সিরিজ। নিউজিল্যান্ড সিরিজের পর সীমিত ওভারের আর কোন সিরিজ খেলেনি বাংলাদেশ। তাই কোন ম্যাচও মিস হয়নি মাশরাফির। বাংলাদেশ দল এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য ব্যাটিং-বোলিং অনুশীলন করলেও মাশরাফি ব্যাট কিংবা বল কোনটাই হাতে নিতে পারেননি।

তবে ফিরে আসার লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। স্ক্যানের পর চোটের উন্নতি দেখে ওয়ানডে সিরিজের আগেই পুরোপুরি সুস্থ হয়ে মাঠে নামার মত ফিট হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী মাশরাফি, ‘শনিবার স্ক্যান করানো হল। এখন সমস্যা নেই। আশা করি খুব দ্রুতই বল হাতে নেওয়ার সুযোগ পাব। শ্রীলঙ্কা সফর শুরু হলেও ওয়ানডে শুরু হতে এখনও বেশ দেরি আছে। আশা করি ২৫ মার্চের আগে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে মাঠে নামার মতো ফিট হতে পারব।’

Advertisements