বর্ষসেরা উদীয়মানের লড়াইয়ে আছেন মিরাজ। বর্ষসেরা পুরস্কারের পাশাপাশি এই পুরস্কার নিয়েও সবার আগ্রহ থাকে। ক্রিকইনফোর বর্ষসেরা কারা হচ্ছে, তা জানা যাবে আজ রাতে। তবে এর আগে জেনে নিতে পারেন মনোনয়ন তালিকা। যেখানে আছে বাংলাদেশের দাপট। গতবার এই পুরস্কারের বর্ষসেরা উদীয়মান বিভাগে জিতেছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। এবারও এই বিভাগে ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন মেহেদী মিরাজ। মিরাজ মনোনয়ন পেয়েছেন বর্ষসেরা টেস্ট বোলিং পারফরম্যান্সেও।
মিরাজ ছাড়াও আরও পাঁচ বাংলাদেশি ক্রিকেটার আছেন মনোনয়ন তালিকায়—তামিম ইকবাল, মাশরাফি বিন মুর্তজা, মোস্তাফিজুর রহমান, মাহমুদউল্লাহ ও সাব্বির রহমান।
টেস্ট ব্যাটিং পারফরম্যান্সে আছেন তামিম ইকবাল। ওই ঢাকা টেস্টেই অনবদ্য ১০৪ রানের ইনিংসটা তামিম ইকবালকে সুযোগ করে দিয়েছে এ তালিকায় আসার। তবে ব্রেন্ডন ম্যাককালামের দ্রুততম সেঞ্চুরি কিংবা বেন স্টোকসের দ্রুততম আড়াই শ রানকে সম্ভবত পেরোতে পারছেন না তামিম। তালিকায় আরও আছে পাল্লেকেলেতে কুশল মেন্ডিসের সেই অবিশ্বাস্য ১৭৬ আর মুম্বাইয়ে বিরাট কোহলির চোখজুড়ানো ২৩৫–ও।
গতবার সেরা অধিনায়কদের ছোট তালিকায় থাকতে পারলেও এবার আর সেটা করতে পারেননি মাশরাফি বিন মুর্তজা। তবে নিজের আসল কাজে ওয়ানডের সেরা বোলিং পারফরম্যান্সে জায়গা করে নিয়েছেন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মাত্র ২৩৮ রানের লক্ষ্যটাকেই কঠিন বানিয়ে দিয়েছেন ২৯ রানে ৪ উইকেট নিয়ে। ওই সিরিজেই প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশের জয় কেড়ে নেওয়া স্পেলে এই তালিকায় চলে এসেছেন জ্যাক বলও। তবে সুনীল নারাইন, ইমরান তাহির কিংবা জন হেস্টিংসের পারফরম্যান্সগুলোই বেশি এগিয়ে আছে।

টি-টোয়েন্টি বোলিংয়েও আছেন বাংলাদেশের প্রতিনিধি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ উইকেট পাওয়া মোস্তাফিজের সঙ্গে বিশ্বকাপেই ৫ উইকেট পাওয়া আরেক বোলার জেমস ফকনারের লড়াই হবে। তবে ভারতের বিপক্ষে মিচেল স্যান্টনারের ৪ উইকেট কিংবা এশিয়া কাপে ভারতের বিপক্ষে মোহাম্মদ আমিরের স্পেলেরই সম্ভাবনা বেশি এবারের বিজয়ী হওয়ার। ম্যাচের গুরুত্ব বিবেচনায়।
ক্ষুদ্রতম সংস্করণের ব্যাটিংয়ে আছেন বাংলাদেশের দুজন। এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সাব্বির রহমানের দুর্দান্ত সেই ৮০ রানের ইনিংস কিংবা পাকিস্তানের বিপক্ষে মাহমুদউল্লাহর মহাগুরুত্বপূর্ণ ২২ রান জায়গা করে নিয়েছে এখানে। আছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কোহলির ৮২ রান, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ১৪৫ রানও।
এশিয়া কাপে আমিরের ওই স্পেলের উল্টো দিকে কোহলির ৪৯ রান কিংবা ভারতকে হারিয়ে দেওয়া ব্রেন্ডন সিমন্সের ৮২* রানের ইনিংসগুলোও কম ফেবারিট নয়। তবে বিশ্বকাপ ফাইনালে মারলন স্যামুয়েলসের ৮৫* কিংবা কার্লোস ব্রাফেটের চার বলে চার ছক্কা মারা ৩৪ রানকে টপকানো খুবই কঠিন হবে!
সব কৌতূহলই মিটবে আজ রাত সাড়ে নয়টায়। তখনই জানা যাবে বাংলাদেশের কেউ জিতলেন কি না। গতবারের মতো এবারও উদীয়মান বিভাগে রাখতে হবে বিশেষ নজর। মিরাজ যে লড়ছেন! সূত্র : ক্রিকইনফো।

Advertisements