মোস্তাফিজের উত্থান খুব বেশি দিনের নয়। তবে উত্থানেই যে হইচই ফেলে দিয়েছেন, তাতেই নিজেকে ঘিরে একটা মাপকাঠি তৈরি করে ফেলেছেন বাংলাদেশের কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। এখন কোনো পেসারের উত্থান হলে সবাই তুলনা শুরু করেন মোস্তাফিজের সঙ্গে। সেটা দেশের মাটিতে হোক কিংবা বিদেশের মাটিতে।

গত বছর আইপিএলের আগে হঠাৎই নতুন ‘মোস্তাফিজে’র আবিস্কার করে ভারতীয় মিডিয়া। বাঁ হাতি পেসার বারিন্দার স্রান। বলা শুরু হয়, তিনিই ভারতের নতুন মোস্তাফিজ। বাঁ-হাতি পেসার। খেলার স্টাইল, গতি কিংবা বলের কারুকাজ নাকি অনেকটাই মোস্তাফিজের মত।

শুধু তাই নয়, আইপিএলে মোস্তাফিজেরই সতীর্থ হন বারিন্দার স্রান। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে প্রায় নিয়মিতই খেলে গেছেন স্রান। তখন ভারতের মিডিয়ায় বলা শুরু হয়, দুই মোস্তাফিজ একই সঙ্গে একই দলে।

এবার নতুন আরেকজন মোস্তাফিজের আবিস্কার করে ফেললো ভারতীয় মিডিয়া। তিনিও বাঁ-হাতি পেসার। বোলিং করার স্টাইলও নাকি অনেকটা মোস্তাফিজের মত। অফ কার্টারটা বেশ ভালোই করতে পারেন। শুধু তাই নয়, ইয়র্কারে ওস্তাদ। তামিল নাড়ুর ঘরোয়া লিগে সুপার ওভারে টানা ৬টি ইয়র্কার দিয়েছিলেন। তার নাম থাঙ্গারাসু নটরাজন।

খুব গরীব ঘরের সন্তান। বাবা কুলি। সেখান থেকে উঠে এসে এখন আইপিএলের মঞ্চে অন্যতম আলোচিত তারকা। কারণ, ১০ লক্ষ রুপি ভিত্তি মূল্য থেকে ৩ কোটি রুপি দিয়ে তাকে কিনে নিয়েছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

এরপরই ভারতীয় মিডিয়াজুড়ে নটরাজনকে নিয়ে আলোচনা। প্রায় প্রতিটি মিডিয়াতেই তাকে তুলনা করা হচ্ছে বাংলাদেশের মোস্তাফিজের সঙ্গে। কলকাতার প্রভাবশালী আনন্দবাজার পত্রিকা লিখেছে, ‘তার সেরা অস্ত্র কাটার। যে কারণে বাংলাদেশের মুস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে ইতিমধ্যেই তুলনা শুরু হয়ে গিয়েছে।’ ক্রিকেট ভিত্তিক ভারতীয় বিখ্যাত ওয়েবসাইট ক্রিকবাজও নটরাজনকে তুলনা করেছে মোস্তাফিজের সঙ্গে।

Advertisements