বিগ থ্রি তত্ত্ব বাদ দেয়ার প্রস্তাবে স্বস্তিতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। আইসিসির দ্বি-স্তর টেস্ট কাঠামোর নতুন প্রস্তাবনা-কে স্বাগত জানিয়েছে বাংলাদেশ। লিগ ভিত্তিক এই কাঠামোয় টাইগারদের টেস্টের সংখ্যা বাড়বে বলছেন বোর্ড কর্তারা। ক্রিকেটের বিশ্বায়নে নতুন এই প্রস্তাবনা কার্যকর হবে বলেও বিশ্বাস ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের।

২০১৬তে আইসিসির দ্বিস্তর টেস্ট কাঠামোর পরিকল্পনা নাড়িয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশকে। সে সময় বিসিবির শক্ত অবস্থান বিফলে যায়নি। এক বছর পর আবারো আইসিসির দ্বিস্তর টেস্ট প্রস্তাবনা। এবারে কোন হুমকি নেই বাংলাদেশের জন্য। নতুন এই কাঠামোয় বরং লাভবান হবে বিসিবি।

নতুন প্রস্তাবনা অনুযায়ী টেস্ট র‍্যাংকিংয়ের নয় নম্বর দল বাংলাদেশ থাকছে প্রথম স্তরে। র‍্যাংকিংয়ের প্রথম নয় দেশ নিজেদের মধ্যে হোম এন্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে খেলবে। আর পরের সারির তিন দল খেলবে নিজেদের মধ্যে। শর্তসাপেক্ষে তারাও বড় দলগুলোর সাথেও নামতে পারবে। লিগ পদ্ধতিতে খেলা হওয়ায় পুরো লিগে আট প্রতিপক্ষের সঙ্গে ঘরের মাঠে আটটি আর প্রতিপক্ষের মাঠে আটটি সিরিজ খেলার সুযোগ পাবে দল।

তবে শংকাও থাকছে এই নিয়মে ব্যর্থতায় অবনমন হতে পারে দ্বিতীয় স্তরে। আফগানিস্তান-আয়ারল্যান্ডের টেস্ট স্ট্যাটাস ক্রিকেটের অগ্রগতির পক্ষেই থাকবে। বিসিবি ক্রিকেটের বিশ্বায়নের পক্ষে তবে নিজেদের ঘর গুছিয়ে রাখতে সবসময়-ই সচেষ্ট।

১৪ বছর আগে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট খেলেছিলো বাংলাদেশ, ইংল্যান্ডে খেলেছে সাত বছর আগে। টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার পর এই প্রথম ভারতের মাটিতে টেস্ট খেলছে টাইগাররা। নতুন নিয়ম অনুমোমদন পেলে এসব দেশে নিয়মিত টেস্ট খেলার সুযোগ মিলবে।

Advertisements