১০ বছর আগের কথা কি মনে আছে বিরাট কোহলির? মনে না থাকলেও অসুবিধা নেই। সুযোগ পেলে ঠিকই মনে করিয়ে দেবেন শুভাশিস রায়!

২০০৭ সালের শুরুর দিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় একটা ত্রিদেশীয় যুব সিরিজ হয়েছিল। তাতে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকাকে দর্শক বানিয়ে ফাইনাল খেলেছিল ভারত ও বাংলাদেশ। সে ম্যাচে ৫৪ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ভারত রীতিমতো কাঁপছিল। যুবা অধিনায়ক কোহলি মাত্র ১ রান করে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছিলেন। বোলার ছিলেন শুভাশিস। গ্রুপ পর্বেও শুভাশিসের শিকার হয়েছিলেন কোহলি। এবার ক্যাচ দিয়েছিলেন কিপারকে। শুভাশিসের পেসের কাছে হার মানার প্রমাণ!
দশ বছর কম সময় নয়। এর মধ্যে কত পরিবর্তন। কোহলি এখন ভারতের সর্বাধিনায়ক। বিশ্ব ক্রিকেটের সেরা তারকাও। যাঁর মধ্যে টেন্ডুলকারের সব রেকর্ডের সমর্পনও দেখছেন অনেকে। আর শুভাশিস এখনো পায়ের নিচে মাটি খুঁজে পাননি।
ভারতের একমাত্র টেস্টে সুযোগ মিলবে কি না জানেন না এই পেসার। বাংলাদেশ স্পিন নির্ভর আক্রমণেই হয়তো ঝুঁকবে। কিন্তু সুযোগ পেলে যে কোহলির উইকেটটা আবারও তুলে নিতে চাইবেন, তা জানিয়ে দিলেন শুভাশিস, ‘বিরাট কোহলি তো বিশ্বের সেরা কয়েকজনের মধ্যে একজন। চেষ্টা করব সুযোগ পেলে ভালো করার। কোহলির উইকেট পেলে তো খুবই ভালো হবে।’
অবশ্য একাদশে জায়গা পাওয়াই তাঁর জন্য কঠিন। নিউজিল্যান্ড সফরে এক টেস্টে ভালো বোলিং করেও পরের ম্যাচে জায়গা হয়নি। আর এবার তো পেস সহায়ক কন্ডিশনও নয়। বাস্তবতাটা শুভাশিস বোঝেন, ‘ওখানে যাওয়ার পর উইকেট দেখার পরই টিম ম্যানেজমেন্ট সিদ্ধান্ত নেবে কয়জন পেসার খেলবে। যদি সুযোগ পাই, আমাদের দলের যে পরিকল্পনা থাকবে, কোচ-অধিনায়কেরা যেভাবে বলবে সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী করার চেষ্টা করব।’
ভারত ক্রিকেট-তীর্থের দেশ। একটা টেস্ট হলেও এই সিরিজের জন্য মুখিয়ে আছেন শুভাশিসরা, ‘একটা টেস্ট খেললে কিছু হলেও শেখা যায়।’

Advertisements