নিউজিল্যান্ড সফর কঠিন হবে সেটা আগে থেকেই জানা ছিল। কিন্তু এমন পরণতির কথা কেউই হয়তো ভাবেনি। ওয়ানডে থেকে শুরু করে টি-টোয়েন্টি, টেস্ট সব ফরম্যাটে কেবল হারই সঙ্গী হয়েছে বাংলাদেশের। তিন ফরম্যাট মিলিয়ে টানা আট ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। অবশেষে দুঃস্বপ্নের সফর শেষে হয়েছে।

বুধবার রাতে ঢাকা পৌঁছে গেছে বাংলাদেশে দল। এমন সফরের পর সিনিয়র ক্রিকেটারদের দায়িত্ববোধ নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। পুরো দলের পারফরম্যান্স নিয়েও হচ্ছে নানা সমালোচনা। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন তো সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবালের মতো তারকা ক্রিকেটারদের নিয়ে সমালোচনা করতেও দ্বিধা দেখাননি।

সব মিলিয়ে কিছুটা চাপের মধ্যেই আছে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। কিন্তু এমন অবস্থা হলে নাকি নিজেদের মধ্যে একতা বাড়ে বলে জানিয়েছেন ইনজুরির কারণে আগেই দেশে ফেরা বাংলাদেশ ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক। বুধবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চিকিৎসক দেখাতে এসে এমনই জানিয়েছেন বাঁ-হাতি এই ব্যাটসম্যান।

দলের মানসিক অবস্থা জানতে চাইলে মুমিনুল বলেন, ‘আমি জাতীয় দলে ঢুকেছি চার বছর। ঢোকার পর থেকে আমি দেখছি, দল যখন খারাপ খেলে তখন ঐক্য ভাল থাকে। আগে অনেক সময় দেখা যেত, খারাপ খেললে দল ছন্নছাড়া হয়ে যায়। আমি বাংলাদেশ ঢোকার পর থেকেই দেখছি দল যখন খারাপ খেলে তখন আরও একতা বাড়ে। আমার মনে হয় না তেমন কোনো সমস্যা হবে।’

নিউজিল্যান্ড সফর শেষ হতেই আলোচনায় ভারত সফর। আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি হায়দরাবাদে শুরু হবে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার একমাত্র টেস্ট ম্যাচটি। এই ম্যাচ নিয়ে মুমিনুল বলছেন, ‘স্পিন ট্র্যাক হলে স্পিন, পেস হলে পেস। আমরা পুরোপুরি প্রস্তুতি নিয়ে যাব। এখন অল্প সময়ের মধ্যে নিজেকে মানিয়ে নিতে হবে। ওখানেও পারফর্ম করতে হবে। দিন শেষে আপনার পারফরম্যান্সটা কাউন্ট হবে।’

প্রথম টেস্ট খেলে পাজড়ের হাড়ের ইনজুরিতে পড়েন মুমিনুল। যে কারণে দ্বিতীয় টেস্ট না খেলেই অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ও ইমরুল কায়েসের সাথে দেশে ফিরে আসতে হয় তাকে। তার ভারত সফর এখনও অনিশ্চিত। তবে মুমিনুল আশাবদী, ‘ব্যথা এখন আগের চেয়ে কিছুটা কম। হয়তো যাওয়ার আগে ফিটনেস টেস্ট দিব। যদি পাস করি, ইনশাল্লাহ যাব।’

Advertisements