কথায় আছে ‘ক্যাচ মিস তো ম্যাচ মিস’। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাথে এ যেন নিত্য দিনের ঘটনা। প্রতি ম্যাচেই হাত ফসকে গেছে অসংখ্য ক্যাচ। যার দরূণ হারতে হয়েছে অনেক ম্যাচ। এর ব্যতিক্রম হয়নি সর্বশেষ নিউজিল্যান্ড সিরিজ। পুরো সিরিজ জুড়েই ক্যাচ মিসের যেন ‘দোকান’ খুলে বসেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। একদিনের ম্যাচ থেকে শুরু করে টেস্ট সিরিজ, সব ফরমেটে একই দৃশ্য। পুরো সিরিজে ১৮ টি ক্যাচ মিস করেছে বাংলাদেশ। তাই সিরিজের সব ম্যাচে হারা বাংলাদেশের পরাজয়ের অন্যতম কারণ বাজে ফিল্ডিং। ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের সমাপ্তির পর সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম যেন তারই আক্ষেপ করলেন।

সংবাদ সম্মেলনে ক্যাচ মিস নিয়ে তামিম বলেন, “ক্যাচ মিস আমাদের বড় এক রোগের নাম। টিম ম্যানেজমেন্ট আশা করি এ ব্যাপারে একজন স্পেশালিস্ট খুঁজে বের করে আমাদের এই ক্যাচ মিসের রোগটা সারানোর ব্যবস্থা করবেন।”

ভিনদেশের পরিবেশে ক্যাচ মিস দলকে বেশি পোড়ায়। সেটিই উঠে আসলো তামিমের কথায়, “আমরা যখন দেশে খেলি এ বিষয়গুলোকে আমরা নিজের মতো সামাল দিতে পারি। কিন্তু যখন নিউজিল্যান্ডের মতো দেশে খেলতে আসি ওরা হয়তো পাঁচটা ক্যাচ মিস করতে পারে কিন্তু আমরা তা মিস করতে পারি না। কারণ আমাদের একজন বোলারকে এমন একটি সুযোগ সৃষ্টি করতে অনেক কষ্ট করতে হয়।”

এদিকে বোলাররা ভালো সুযোগ তৈরী করলেও ফিল্ডাররা দিতে পারেন নি যোগ্য সহায়তা। পেসারদের প্রশংসা করে তামিম বলেন, “আমাদের পেস বোলাররা গোটা সিরিজে অসাধারণ বল করেছেন। ভালো বল করে তারা এসব ক্যাচের সুযোগ সৃষ্টি করেছেন। ভালো ব্যাটিং একটি দলের অবশ্যই বিজয়ের একটি স্তম্ভ। কিন্তু ফিল্ডিং বিশেষ করে যে আঠারোটার মতো ক্যাচ আমরা মিস করেছি এর সত্তুরভাগও যদি আমরা ধরতে পারতাম তাহলে গল্পটা অন্য রকম হতো। আমি অন্তত মনে করি কেউ ইচ্ছা করে ক্যাচ মিস করে না। আরেকটা বিষয় হলো স্লিপে ক্যাচ মিস করাটা নিয়ে আমরা ভবিষ্যতে কাজ করতে পারি।”

Advertisements