বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) চতুর্থ আসরেই নিজেকে চেনালেন মেহেদি মারুফ। ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে রীতিমতো ‘রান মেশিন’ বনে যাওয়া, সেখান থেকে সোজা বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ক্যাম্পে! এতকিছুর পরও খুব উচ্ছ্বসিত নন মারুফ। তিনি জানান, স্বপ্ন মনে হতে পারে এমন কিছু নয়।

বিপিএলের চতুর্থ আসরে ডায়নামাইটসের হয়ে ২৬.৬৯ গড়ে ১৪ ম্যাচে মোট ৩৪৭ রান তুলেছেন মারুফ। সর্বোচ্চ ৭৫ রানের ইনিংসের পাশাপাশি রয়েছে দুটি হাফসেঞ্চুরি। আর যে ঘরোয়া ক্রিকেট দিয়ে তার বেড়ে ওঠা, সেখানে পদচারণা প্রায় এক দশকের মতো। ২৮ বছরের মারুফ এতদিনে যা পাননি তা পেয়েছেন বিপিএলে। অস্ট্রেলিয়ায় অনুশীলন ক্যাম্পে সুযোগ পেয়েছেন। প্রাপ্তিটা বিশাল বটে, কিন্তু অন্যভাবেই সুযোগটা চেয়েছিলেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে তিনি দৈনিক প্রথম আলো-কে বলেন, ‘গত ক’দিনে যা ঘটে গেল, তা খুব একটা স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে না। টুর্নামেন্টে যদি ৪০০ রান করতাম…পারফরম্যান্স দিয়ে সরাসরি জাতীয় দলে চলে আসতাম, তাহলে আরও ভালো লাগত। শেষ দিকে কয়েকটি ম্যাচ ভালো না খেলায় দ্বিধায় ছিলাম নির্বাচকেরা আমাকে নেবেন কি না। আসলে নিজের খেলায় সন্তুষ্ট নই।’

তবে এটুকো স্বীকার করছেন, জাতীয় দলের সঙ্গী হওয়াটা যে এই বিপিএলের হাত ধরেই হবে, সেটা ভাবেননি তিনি। মারুফ বলেন, ‘ভাবিনি বিপিএল দিয়ে এই পর্যায়ে সুযোগ পাব। এখন সবচেয়ে বড় স্বপ্নটা পূরণে যত কষ্ট বা ত্যাগ স্বীকার করতে হয়, তা করব।’

পিঠে নেই জাতীয় দলের সিল। তার ওপর আবার ঢাকার মতো বড় দলের ওপেনার। স্থানীয় ক্রিকেটার হয়েও চোখ ধাঁধানো পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন তিনি। তার সঙ্গে ছায়া হয়ে ছিলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান আর কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন।

Advertisements